মাত্র ৯ মাসেই পুরো কুরআন মুখস্থ করে বিশ্ব রেকর্ড করলেন ৭ বছর বয়সী শিশু মুহাম্মদ জিব্রিল বিন নেছারী!

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।

সারা বিশ্বেকে তাক লাগিয়ে মাত্র ৭ বছর বয়সী ছোট্ট শিশু মুহাম্মদ জিবরিল বিন নেছারী পুরো পবিত্র কুরআন মুখস্থ করেছেন মাত্র ৯ মাসে! যা একটি বিশ্ব রেকর্ড! কারণ মাত্র ৭ বছর বয়সী একটি শিশু পুরো পবিত্র কুরআন মুখস্ত করেছেন মাত্র নয় মাসে। এটি সত্যিই একটি অবিশ্বাস্য ঘটনা।

মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের অশেষ মেহেরবানীতেই মাত্র ৯ মাসের মধ্যে পুরো পবিত্র কুরআন মুখস্থ করে হাফেজ হয়েছেন বাংলাদেশের উন্যতম স্বনামধন্য ক্বারী ও আন্তর্জাতিক হাফেজে কুরআনদের ওস্তাদ ও মারকাজুত তাহফিজ ফাউন্ডেশনের সম্মানিত চেয়ারম্যান শায়েখ নেছার আহমাদ আন নাছিরীর তৃতীয় ছেলে হাফেজ জিবরিল বিন নেছারী।

মাত্র ৭ বছর বয়সী শিশু ৯ মাসে হাফেজ হয়েছেন এমন খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর প্রশংসায় ভাসছেন এই ছোট্ট শিশু। এত অল্প বয়সে মাত্র ৯ মাসের মধ্যে হাফেজ হওয়ার বিষয়ে তার বাবা নেছার আহমাদ আন নাছিরীর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমি ব্যক্তিগতভাবে ছোট ছোট শিশুদের বাবা মা’ র সপ্ন পুরনের কাজ করে যাচ্ছি যুগ যুগ যাবত,নিজের সন্তানদের প্রতি তেমন খেয়াল করার সুযোগ হয়ে উঠেনি,অনেকগুলো মাদরাসার জিম্মাদারী পালন করার কারনে,হাজারো ছাত্রদের ভীরে নিজের সন্তানদের প্রতি তেমন মনোযোগ দিতে পারনি,কিন্তু অন্যদের সন্তানদেরকে হাফেজ বানানোর পাশাপাশি বিভিন্ন রাষ্ট্রে অনুস্ঠিত কুরআন প্রতিযোগিতায় নিয়ে গিয়েছি তারা মক্কা মদিনায় কুরআন তিলাওয়াত করে বিশ্ববিজয়ী ও হয়েছে আলহামদুলিল্লাহ! আমি মনে করি অন্যন্য বাবাদের সপ্ন পুরন করার কারনে আল্লাহ তায়ালা আমার সপ্ন পুরন করে আমার তিন ছেলেকে কুরআনে হাফেজ বানিয়েছেন আলহামদুলিল্লাহ।

শায়েখ নেছার আহমাদ আরো জানান, আলহামদুলিল্লাহ্ এর আগেই আমার বড় ছেলে এবং মেজো ছেলে কুরআনে হাফেজ হয়েছে। একজন বাবা হিসেবে এর চেয়ে বড় পাওয়া আমার জীবনে আর কিছুই নেই।

ছোট্ট শিশু হাফেজ জিবরিল বিন নেছারীর শেষ সবক অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের ৪ জন ইমাম ও দেশবরন্য আলেম উলামা ও আন্তর্জাতিক ক্বারী সাহেবগণ। উপস্থিত ওলামায়ে কেরামের সামনে যখন সাত বছরের ছোট্ট শিশু জিব্রিলকে প্রশ্ন করা হয় বড় হয়ে তুমি কি হতে চাও? সে বলল আমি বড় হয়ে আল্লাওয়ালা হতে চাই। ছোট্ট শিশুর মুখে এমন কথা শুনে উপস্থিত ওলামায়েকেরামরা আশ্চর্য হয়ে যান। এই সময় উপস্থিত ওলামায়ে কেরামগণ সবাই তার জন্য দোয়া করেন, মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন যেন তাঁকে একজন খাঁটি আল্লাহওয়ালা হিসেবে কবুল করেন।

এদিকে আমাদের আওয়ার টাইমস্ নিউজ প্রতিনিধির সাথে আলোচনাকালে ছোট্ট শিশু জিব্রিলের এমন অবিশ্বাস্য অর্জনের বিষয়ে তার গর্বিত বাবা শায়েখ নেছার আহমাদ আন নাছিরীর কাছে তার অনুভূতি কথা জানতে চাইলে তিনি জানান, আলহামদুলিল্লাহ্ আমার তিন ছেলে তারা সবাই এখন প্রবিত্র কুরআনের হাফেজ। একজন বাবা হিসেবে দুনিয়ার মধ্যে এরচেয়ে বড় পাওয়া আর কি হতে পারে। এসময় তিনি তাঁর হাফেজে কুরআন তিন সন্তান মুহাম্মদ জিবরিল বিন নেছারী বড় ছেলে জায়েদ বিন নেছারী,ও মেজো ছেলে জাবের বিন নেছারীর জন্য
দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন, মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন যেন তাদেরকে আল্লাহ্ওয়ালা ও দিনের ধারক বাহক হিসাবে কবুল করেন।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে