অভিনয় জগত থেকে সম্পুর্ন সরে দাঁড়ালেন সুজানা জাফর ও এ্যানি খান।

0

স্টাপ রিপোর্টার:মুহাম্মাদ উজ্জ্বল খান

বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী এ্যানি খান, গেল মাসের ১৯ জুন ২০২০ খ্রীস্টাব্দ ফেসবুক লাইভে এসে অভিনয়ের জগত থেকে চির বিদায় নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তিনি জানান ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে এবং আগামীতে নিজেকে ধর্মীয় কাজে মনোনিবেশ করবেন বলে অভিনয় জগৎ ছেড়ে দেয়ার এই ঘোষণা দেন জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী।

ফেসবুকে লাইভে এসে অভিনেত্রী এ্যানি খান জানিয়েছেন তিনি কারো দ্বারা প্রভাবিত হয়ে নয়, বরং স্বেচ্ছায় তিনি অভিনয় ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। নিজেকে সময় দেয়ার জন্য ও ইসলামের সঠিক পথে নিজের জীবনকে পরিচালনার করার জন্য তার এই সিদ্ধান্ত।

তিনি শিশুশিল্পী হিসেবে ক্যারিয়ার শুরুর পর টিভি নাটক ও উপস্থাপনায় নিজের ক্যারিয়ারকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছিলেন। প্রায় দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে এই অঙ্গনে সক্রিয় ছিলেন সুদর্শনী এই অভিনেত্রী।

এদিকে ঠিক একই কারণ দেখিয়ে সপ্তাহখানেক আগে এই অভিনয় জগত থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন মডেল ও অভিনেত্রী সুজানা জাফর। তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই থেকে টেলিফোনে তার এই অভিনয় ছাড়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন। তিন কারণ হিসেবে ধর্মীয় কাজে মনোনিবেশের কথা বলেন। ২০১৮ সালের নভেম্বরে ওমরাহ পালনের পর থেকেই অভিনয়ের কাজে অনিয়মিত হয়ে পড়েন সুজানা জাফর।

সুজানা জানান, লকডাউনের এই অবসর সময়টা আমার জন্য আশীর্বাদ হয়ে এসেছে। এ সময়ে ইসলাম সম্পর্কে অনেক কিছু জেনেছি এবং শিখেছি। প্রতিনিয়ত কোরআন ও হাদিস পড়ছি এবং নতুন করে শিখছি। দোয়া শেখা, হাদিস পড়া, কুরআন শরিফ পড়ে সময় পার করছি। আমি ছোটবেলা থেকেই ধর্মীয় বিষয়গুলো চর্চা করার চেষ্টা করি। গত রোজায় কদরের রাত গুলোতে ইতেকাফে ছিলাম। এই সময় আমি যা শিখছি, তা নিজের অবস্থান থেকে প্রচার করছি। ভাই-বোনদের শেখাচ্ছি।

সুজানা জাফর আরও বলেন, আমার সহশিল্পীদের জন্য আমি দোয়া করি। সবার কল্যাণ চাই। সবসময় চাই, আল্লাহ্ যেন তাদেরকে হেদায়েত দান করেন, এবং তারা যেন ইসলামের পথে আসার সুযোগ পান।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে