আজারবাইজানের হামলায় আর্মেনিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী আহত।

0

রিপোর্টার: সাইফুল ইসলাম।

গতকাল (মঙ্গলবার) স্বঘোষিত প্রজাতন্ত্র নাগোর্নো-কারাবাখের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জালাল হারুতিয়ান মারাত্মক আহত হয়েছেন। তাকে বহনকারী গাড়ীতে বোমা হামলার ভিডিও ক্লিপ প্রকাশ করেছে আজারি সেনাবাহিনী। তাতে দেখা যাচ্ছে, চলমান একটি গাড়ীতে বিস্ফোরণের পর, আগুন ধরে গেছে। এ গাড়ীতেই উনি ছিলেন বলে দাবি করেছে আজারবাইজান। আর্মেনিয়ার নিয়ন্ত্রণে থাকা কারাবাখে স্থানীয় সরকার তাদের প্রতিরক্ষামন্ত্রী আহত হওয়ার খবরের সত্যতা স্বীকার করেছে। কিন্তু আজারবাইজান বলছে, উনি নিহত হয়েছেন।

স্থানীয় সরকারের প্রধান আরাইক হারুতিয়ান বলেছেন: প্রতিরক্ষামন্ত্রী আহত হওয়ায় নতুন একজনকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তার দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি।

পক্ষান্তরে, আজারবাইজান বলছে, জালাল হারুতিয়ানকে গাড়ীসহ উড়িয়ে দিয়েছে আজারবাইজানের সেনাবাহিনী। এ দাবির পক্ষে আজভিশনের প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায় – সামরিক বহরে থাকা একটি গাড়ীতে বোম্বিং করা হয়। এতে গাড়ীটিতে আগুন লেগে ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন হয়ে যায়। উদ্ধারের জন্যে সেনারা এগিয়ে গেলেও আগুনের কারণে তা সম্ভব হয়নি।

কিন্তু কারাবাখের স্বঘোষিত প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র ভাহরাম পোগোসায়ানের ফেসবুক পোস্টের বরাতে রেডিও অব আর্মেনিয়া বলছে: জালাল হারুতিয়ান আহত হয়েছেন। তবে তিনি এখন বিপদমুক্ত। তার জীবন ঝুঁকিতে নেই। তিনি ভাগ্যক্রমে গুরুতর আহত হননি এবং তিনি খুব শ্রীগ্রই সেনাবাহিনীতে যোগ দেবেন।

সংবাদমাধ্যমটি আরো বলেছে, আজারবাইজানের গণমাধ্যমে জালাল হারুতিয়ানকে হত্যার তথ্য প্রকাশের পর, তিনি (ভাহরাম) এমন মন্তব্য করেন।

অন্যদিকে, আজভিশন বলছে, অস্বীকৃত বিচ্ছিন্নতাবাদী সরকার যতোটা সম্ভব জালাল হারুতিয়ানের মৃত্যুকে আড়ালের চেষ্টা করছে।

জালাল আনাতোলি হারুতিয়ান অস্বীকৃত প্রজাতন্ত্র নাগোর্নো-কারাবাখের লেফট্যানেন্ট জেনারেল। বর্তমানে তিনি ডিফেন্স আর্মির কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। একই সঙ্গে ওখানকার প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবেও কাজ করছেন।

এদিকে, অস্বীকৃত নাগোর্নো-কারাবাখ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গতকাল (মঙ্গলবার) তাদের আরো ৩৫ যোদ্ধা হতাহত হয়েছে। এ নিয়ে ২৭শে সেপ্টেম্বর থেকে এ পর্যন্ত অস্বীকৃত অঞ্চলটির ১,০০৯ জন যোদ্ধা নিহত হয়েছে।

ওদিকে, গতকাল বৈরুতে তুর্কি দূতাবাসের সামনে আর্মেনিয়ার দাশনাকসুতিয়ান দলের আয়োজিত অনুমোদনহীন বিক্ষোভ সমাবেশে বিক্ষোভকারীরা তুরস্ক, আজারবাইজান ও ইসরাইলের পতাকা পুড়িয়েছে। আজভিশন এ ঘটনার একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে।

এর আগে জর্জিয়ায় ইসরাইলের দূতবাসের সামনে আর্মেনিয়ার একটি গোষ্ঠী বিক্ষোভের চেষ্টা করে। তখন তারা আজারবাইনের পক্ষে ইসরাইলি সমর্থনের বিপক্ষে স্লোগান দেয়।

সূত্র: দি আরমানিয়ান উইকলি, রেডিও অব আর্মেনিয়া ও আজভিশন।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে