আফগানিস্তানে টিভি সিনেমা নিয়ে নতুন আইন জারি করলো তালেবান সরকার।

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: আফগানিস্তানের ইসলামী সরকার দেশটির সরকারী-বেসরকারী টিভি চ্যানেলগুলোতে ৮ দফা ফরমান জারী করে শরীয়তবিরোধী সব অনুষ্ঠান সম্প্রচার নিষিদ্ধ করেছে। আর এএফপি, বিবিসি, এনডিটিভি ইত্যাদি পাশ্চাত্য ও ভারতীয় মিডিয়া এ খবরটিকে বিকৃতভাবে প্রচার করছে।

তালেবান সরকারের ‘নেক কাজে আদেশ ও বদ কাজে নিষেধ’ মন্ত্রণালয় টিভি চ্যানেলগুলোর কাছে পাঠানো এক চিঠিতে বলেছে, এসব চ্যানেল যেনো নারী চরিত্র সম্বলিত কোনো নাটক বা সিরিয়াল সম্প্রচার না করে। টিভি চ্যানেলগুলো ইসলামী শরীয়ত ও আফগান সমাজের মূল্যবোধের পরিপন্থী কোনো নাটক, সিনেমা বা সিরিয়াল সম্প্রচার করতে পারবে না। দেশী-বিদেশী যেসব সিনেমায় পশ্চিমা সংস্কৃতি ও রসম-রেওয়াজ তুলে ধরা হয় এবং সমাজে চারিত্রিক অধঃপতনের কারণ হতে পারে – এমন সব সিনেমাও সম্প্রচার করা যাবে না। টিভিতে বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানগুলো এমনভাবে তৈরি করা যাবে না – যেখানে কাউকে হেয় প্রতিপন্ন বা বিদ্রূপ করা হয়। একই সাথে দ্বীনি পরিচয় ফুটে ওঠে – এমন কোনো নিদর্শন নিয়েও বিদ্রূপ করা যাবে না। উপস্থাপিকা বা সংবাদ-পাঠিকাদেরকে ইসলামী হিজাব সঠিকভাবে পরতে হবে এবং তারা কোনো কমেডি প্রোগ্রাম উপস্থাপন করতে পারবেন না। পাশাপাশি যেসব সিরিয়ালে নবী-রাসুল (’আলাইহিমুস সলাতু ওয়াস সালাম) এবং মহানবীর সাহাবীদের (রাদ্বিআল্লাহুতা’লা ’আনহুম) চরিত্র ফুটিয়ে তোলা হয়েছে, সেসব সম্প্রচার করা যাবে না। এছাড়াও ফুটেজে পুরুষের অনাবৃত শরীর দেখানো যাবে না। এসব কাজ হারাম ও কঠোরভাবে নিষিদ্ধ।

উল্লিখিত মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হাকিফ মোহাজির বলেন: এগুলো আইন নয়, বরং ধর্মীয় নির্দেশনা।

তালেবান সরকার এমন সময় এ ফরমান জারী করলো – যখন গত দু দশকে আফগানিস্তানের টিভি চ্যানেলগুলোতে বেশীরভাগ সময় কমেডি প্রোগ্রামের পাশাপাশি তুর্কি ও ভারতীয় সিরিয়াল ও সিনেমা সম্প্রচার করা হচ্ছিলো। এ ফরমানের ফলে ওগুলোর বেশীরভাগ সম্প্রচার বন্ধ রাখতে হবে। সূত্র: পার্সটুডে, এএফপি, বিবিসি ও এনডিটিভি।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে