আর্মেনীয়ান বাহিনীকে পিষে ফেলার হুমকি দিলেন আলীয়েভের!

0

Our Times News

আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান একে অপরের বিরুদ্ধে এবং উভয়ের বিরুদ্ধে যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের অভিযোগ করেছে রুশ শান্তিরক্ষী বাহিনী। ১০ই রাশিয়ার মধ্যস্থতায় নভেম্বরের যুদ্ধবিরতির পর, নাগোর্নো-কারাবাখর বেশিরভাগ এলাকার নিয়ন্ত্রণ ছেড়ে যায় আর্মেনীয়রা। এরপর এই প্রথম তা লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটলো।

শনিবার (১২ ডিসেম্বর) রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র কোনো পক্ষকে দোষারোপ না করে জানিয়েছেন, হাদরুত জেলায় ১১ই ডিসেম্বর একটি যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেছে। দু পক্ষের মাঝে অটোমেটিক অস্ত্রের মাধ্যমে গুলি বিনিময় হয়। তিনি দু পক্ষকে যুদ্ধবিরতি মেনে চলার আহ্বান জানান।

আজারবাইজান বলেছে, সম্প্রতি আর্মেনিয়ার কাছ থেকে ফেরত পাওয়া হাদরুত এলাকায় যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে আর্মেনীয় সেনাদের হামলায় আজেরি চার সেনা নিহত হয়েছে। অবশ্য আজারি সেনারা পাল্টা প্রতিরোধ গড়ে তুললে আর্মেনীয় দু সেনাও নিহত হয়েছে।

আরমেনিয়া সরকার দাবি করেছে, আজারবাইজান যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে প্রথমে হামলা করেছে এবং এতে আর্মেনিয়ার ৬ সেনা আহত হয়েছে।

আর্মেনিয়ার এ দাবির প্রতিক্রিয়ায় আমেরিকা ও ফ্রান্সের শীর্ষ পর্যায়ের কূটনীতিকদের সঙ্গে বৈঠকের সময় আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলীয়েভ অভিযোগ করেন: হাদরুত এলাকা আবার দখল করতে আর্মেনীয় সেনারা যুদ্ধ শুরু করেছে। হামলা অব্যাহত থাকলে, তাদেরকে দাঁতভাঙ্গা জবাব দেয়া হবে। নতুন করে যুদ্ধ শুরু করা আর্মেনিয়ার উচিত হবে না। খুবই সতর্ক থাকা দরকার এবং কোনো রকম সামরিক অভিযানের পরিকল্পনা যেনো তারা না করে। এবার কিন্তু আমরা তাদেরকে একেবারে পুরোপুরি ধ্বংস করে দেবো। এটা কোন গোপন কথা নয়।

এদিকে গতকাল সকালে নাগোর্নো-কারাবাখের বাহিনী দাবি করেছে, আজারি সেনার হামলায় তাদের তিনজন নিরপত্তাকর্মী আহত হয়েছেন।

অপরদিকে, আর্মেনীয় সেনাবাহিনীর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নাগোর্নো-কারাবাখ বাহিনীর নিয়ন্ত্রণাধীন দুটি গ্রামে হামলা চালিয়েছে আজারবাইজান। সূত্র: আল-জাজিরা ও পার্সটুডে।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে