ইসলাম বিদ্বেষ থেকেই কানাডায় ৪ মুসলিমকে হত্যা! খুনির স্বীকারোক্তি।

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।
গেল রবিবার কানাডার অন্টারিও প্রদেশের লন্ডন শহরে স্থানীয় সময় রাত পৌনে ৯টার দিকে ওখানকার এক তরুণ ১৪ বছর আগে পাকিস্তান থেকে আসা এবং রাস্তায় হাঁটতে থাকা মুসলিম একটি পরিবারের উপর ট্রাক উঠিয়ে দিয়ে সৈয়দ আফজাল (৪৬), তাঁর বৃদ্ধা মা (৭৪), স্ত্রী মাদিহা সালমা (৪৪) ও মেয়ে ইয়ুমনাহ আফজালকে (১৫) খুন করেছে। পরিবারটির একমাত্র শিশু-সদস্য ফায়েজ আফজাল (৯) গুরুতরভাবে আহত হয়ে হাসপাতালে রয়েছে। খুনিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সে স্বীকার করেছে যে, মুসলিম বলেই তাদের সে ইচ্ছে করেই গাড়ীচাপা দিয়ে হত্যা করেছে! সে কোনো ‘হেট গ্রুপের’ সদস্য কিনা, তা এখনো নিশ্চিতভাবে জানা যায়নি। জিজ্ঞাসাবাদের পর, তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলে পাঠানো হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ৪ জনকে হত্যা এবং এক জনকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ আনা হয়েছে।

সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে কানাডার গোয়েন্দা পুলিশের সুপারিনটেনডেন্ট পল ওয়েট বলেছেন: আমাদের কাছে প্রমাণ আছে – এটা একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। মুসলিম হওয়ায় এসব মানুষের ওপর হামলা হয়েছে বলে মনে হচ্ছে। তবে পুলিশ সম্ভাব্য সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগও খতিয়ে দেখছে। অভিযুক্ত হামলাকারীর নাম নাথানিয়াল ভেল্টম্যান (২০)। লন্ডন শহরের বাসিন্দা সে। হামলার পর, সেখান থেকে ৬ কিঃমিঃ দূরের একটি বিপণী বিতান থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এক টুইটে বলেছেন: আমি খবরটি শুনে আতঙ্কিত! অন্টারিও’র ঘটনায় আমি মর্মাহত। ঘৃণিত এ ঘটনায় যারা প্রিয়জনদের হারিয়েছেন, আমরা আপনাদের পাশে রয়েছি। হাসপাতালে থাকা শিশুটিরও পাশে আছি আমরা।

অনন্টরিও প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ডগ ফোর্ড বলেছেন: অন্টারিওতে ঘৃণা ও ইসলাম বিদ্বেষের কোনো স্থান নেই।

লন্ডনের মেয়র অ্যাড হোল্ডার এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

২০১৭ সালে কুইবেক শহরের মসজিদে ৬ জনকে হত্যার পর, কানাডায় মুসলিমদের ওপর এটাই সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা। সূত্র: আনাদোলু, রয়টার্স ও বিবিসি বাংলা।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে