ইহুদী ইসরাইলবিরোদী মনোভাব বেড়ছে যুক্তরাষ্ট্রে শিক্ষার্থীদের মধ্যে!

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।
সাম্প্রতিক বছরগুলোতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ইসরাইলবিরোধী মনোভাব মারাত্মকভাবে বেড়েছে। তেল আবিব বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট ফর ন্যাশনাল সিকিউরিটি স্টাডিজের (আইএনএসএস) এর গবেষণায় এমন তথ্য উঠে এসেছে।

গবেষণার লেখক মিরিয়াম এলমান বলেন, ইহুদিবাদবিরোধী মনোভাব বিভিন্ন উপায়ে বিকশিত হচ্ছে। তার একটি হলো মার্কিন শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ইহুদিরা গোপনে সরকারে অনুপ্রবেশ করেছে। খবর আনাদুলু এজেন্সির

এলমান বলেন, নিয়মিত ইসরায়েলবিরোধী প্রচারণা (বয়কট করা, বর্জন করা এবং নিষেধাজ্ঞা দেয়া), নামীদামী বিশ্ববিদ্যালয়সহ শতাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ইহুদি শিক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার পাওয়া এই মনোভাবের পেছনে কাজ করেছে।

গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অনেক শিক্ষার্থী ইসরায়েলের শিক্ষার্থীদের জাতিচ্যুত দেশের প্রতিনিধি হিসাবে দেখে।

তারা ইহুদিদের সাম্রাজ্যবাদী, বর্ণবাদী, এমনকি নাৎসি ও উগ্র শেতাঙ্গবাদী হিসাবে সংজ্ঞায়িত করে।

সমীক্ষায় বলা হয়েছে যে, কিছু শিক্ষার্থী ইহুদিবাদে বিশ্বাসী ছিল। তারা ইসরায়েলের পরিচয় দিলে তাদেরকে নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালনের যোগ্যতা সম্পর্কে প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়েছে।

গবেষণায় দেখা গেছে যে, মার্কিন শিক্ষার্থীদের মধ্যে ইসরায়েলকে বয়কট, বর্জন ও নিষেধাজ্ঞার মনোভাব বাড়ছে। পাশাপাশি ফিলিস্তিনপন্থিদের আন্দোলন বিডিএস এর প্রতি সমর্থন বাড়ছে।

বিডিএস ফিলিস্তিনি নেতৃত্বাধীন একটি আন্দোলন, যা দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলন দ্বারা অনুপ্রাণিত। এই আন্দোলন ফিলিস্তিনিদের স্বাধীনতা, ন্যায়বিচার এবং সমতা দাবি করে, ইসরায়েলি পণ্য বর্জন এবং নিষেধাজ্ঞার প্রদানের প্রচার করে এবং ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলের নিপীড়নের জন্য আন্তর্জাতিক সমর্থন অব্যাহত রাখতে কাজ করে।

ওই গবেষণায় আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে, শুধু শিক্ষার্থী নয় ইসরায়েলবিরোধী মনোভাবের শিক্ষকদের সংখ্যাও বাড়ছে। যারা ইসরায়েলবিরোধী বিভিন্ন মতামত প্রকাশ করেন।

এর আগেও মার্কিনীদের মধ্যে ইসরায়েলবিরোধী মনোভাব বাড়ার প্রবণতা বৃদ্ধির বিষয়ে বিভিন্ন প্রতিবেদনে বলেছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো। এই অবস্থাকে ইসরায়েলের জন্য অসুবিধাজনক হিসেবে গবেষণায় উল্লেখ করা হয়েছে।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে