প্রথমবারের মতো পুরো লকডাউন ঘোষণা তুরস্কে!

0

রিপোর্টার:সাইফুল ইসলাম রুবাইয়্যাত।
আওয়ার টাইমস্ নিউজ: তুরস্কে করোনা মহামারীর তৃতীয় ঢেউ সামাল দিতে গতকাল (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যা ৭টা থেকে ১৭ই মে পর্যন্ত প্রথমবারের মতো সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করে এ সময়ে দেশটিতে কোনো জনসমাবেশ কিংবা জনসমাগমের অনুমতি দেয়া হবে না বলে জানানো হয়েছে। তবে ১৫ দিন পরে পবিত্র ঈদুল ফিতরের উৎসব ও সামাজিক মেলামেশার একটা ঐতিহ্যগত অনুষ্ঠান রয়েছে।

তুরস্কের জনসংখ্যা ৮ কোটি ৪০ লাখ। চলতি সপ্তাহে দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ৩৫০ জন। গত বছর দু দফা সংক্রামণের তুলনায় এ বছর মৃতের সংখ্যা বেড়েছে। বুধবার দেশটিতে নতুন সংক্রমণ ধরা পড়েছে ৪০,৪৪৪ জনের। অবশ্য মাসের প্রথমদিকের তুলনায় তা কমই আছে। প্রথমদিকে সংক্রমণ ৬০ হাজারেরও বেশি ছিলো। দেশটিতে শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ লাখের ওপরে এবং মারা গেছেন ৩৯ হাজার ৩৯৮ জন।

সোমবার টিভি ভাষণে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান বলেছেন: আমাদের দ্রুত সংক্রমণের হার কমাতে হবে। দৈনিক সংক্রমণ পাঁচ হাজারের নিচে নিয়ে আসতে হবে। সব রকম অগুরুত্বপূর্ণ ব্যবসায়িক কাজকর্ম বন্ধ রাখতে হবে। বিভিন্ন অঞ্চলের মাঝে অবাধ চলাচল বাতিল করতে হবে। আর সুপারমার্কেটগুলো রবিবারও বন্ধ থাকবে।

একটা সহনীয় পর্যায়ের সংক্রমণ নিয়ে তুরস্ক তাদের দৈনন্দিন কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছিলো। কিন্ত জানুয়ারীর মাঝামাঝিতে তাদের পরিকল্পিত টিকাদান কর্মসূচিতে শিডিউল বজায় রাখতে না পারায় দেশটিতে নতুন করে সংক্রমণের আশঙ্কা থেকে এ নতুন নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এ মুহূর্তে তুরস্ক এখন করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর একটি। ইউরোপের দেশগুলোর মাঝে তুরস্কে করোনার সংক্রমণের হার সবচেয়ে বেশি!

নতুন বিধি-নিষেধে থাকছে –

১। আবশ্যকীয় কেনাকাটা এবং স্বাস্থ্য সংক্রান্ত জরুরি পরিস্থিতি ছাড়া কেউ বাড়ীর বাইরে যেতে পারবেন না।

২। এক শহর থেকে অন্য শহরে যেতে সরকারী অনুমতি লাগবে।

৩। স্কুল বন্ধ থাকবে। গণপরিবহণ চলবে। তবে আসন সংখ্যা নির্দিষ্ট করে দেয়া হবে।

৪। অ্যালকোহল বিক্রি সীমিত থাকবে।

তবে কিছু কিছু ব্যবসার ক্ষেত্রে এসব বিধিনিষেধ প্রযোজ্য হবে না। এদিকে, নতুন করে লকডাউন দেয়ার সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন অনেক বিশেষজ্ঞ। তারা বলছেন, এ লকডাউনের দরকার আছে। তবে লকডাউনের বিরোধিতাও করছেন কেউ কেউ। তাদের মতে, সংক্রমণ বৃদ্ধি প্রতিরোধে এ লকডাউন বেশিদিন টিকবে না। আর টিকার কার্যক্রম দ্রুত চালানো না গেলে এ লকডাউন খুব বেশি কাজে আসবে না। এছাড়া, লকডাউন বা এ ধরনের যে কোনো পদক্ষেপ নিলে, কম আয়ের মানুষের জন্যে আর্থিক সহায়তার ব্যবস্থা থাকা উচিত বলে তারা মনে করেন। সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি ও বিবিসি।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে