প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কারনে ভেঙ্গে পড়েছে পাকিস্তানের সবকিছু।

0

রিপোর্টার: মোর্শেদ আলম

সম্প্রতি কূটনীতিক ব্যর্থতার কারণে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের তীব্র সমালোচনা করেছেন সে দেশের আইনসভা ও পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নুন (পিএমএল-এন)-এর সদস্য খাজা আসিফ। তিনি ইমরান খানের বিরুদ্ধে অভিযোগ বলেন, আজ পাকিস্তানের সবকিছু ভেঙে পড়ছে এক মাত্র ইমরান খানের কারণে।

পাকিস্তানের পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে ১৪ মিনিট সময় ধরে দেওয়া বক্তব্যে আসিফ খাজা বলেন, জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে অস্থায়ী সদস্য হওয়া ব্যাপার নয়। তবে ১৯২টি ভোটের মধ্যে ১৮৪ ভোট পেয়ে জয়ী হওয়াটাই সবচেয়ে বড় ব্যাপার। আমাদের তথাকথিত ভ্রাতৃপ্রতিম দেশগুলো ভারতের পক্ষে ভোট দিয়েছে। অন্যান্য দেশ যেখানে নির্বাচিত হয় ১৪০, ১৪৫ কিংবা ১৫০টি আসন পেয়ে, আর সেখানে ভারত নির্বাচিত হয়েছে ১’শ ৮৪টি আসন নিয়ে।

এসময় খাজা আসিফ , আমরা বাস্তবতার মুখোমুখি। বৈদেশিক নীতি বা স্বাস্থ্য, কিংবা অর্থনীতি; সবকিছুই ব্যর্থ হচ্ছে বা ভেঙে পড়ছে। আর আপনি (ইমরান খান) আমাদের খুশি করার চেষ্টা করছেন। কিন্তু আমাদের মাথার ওপর দিয়ে পানি চলে গিয়েছে।

খাজা আসিফ জোর দিয়ে আরো বলেন, ইমরান খানের কারণে পাকিস্তানের যে ধ্বংস হয়েছিল, তা কেবল তখনই পাল্টে যেতে পারে, যদি আমরা তার থেকে মুক্তি পাই। যতক্ষণ তিনি ক্ষমতায় থাকবেন, ততক্ষণ সবকিছু ভেঙে পড়তেই থাকবে। 

নিহত সন্ত্রাসী ওসামা বিন লাদেনকে ‘শহীদ’ বলে আখ্যা দেওয়ার জন্যও ইমরান খানকে তুলোধুনা করেন তিনি। খাজা আসিফ বলেন, লাদেন আমাদের দেশে সন্ত্রাস নিয়ে এসেছে। লাদেন ছিল সর্বোচ্চ স্তরের সন্ত্রাসী। আমার দেশকে সে ধ্বংস করে দিয়েছে। কিন্তু আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী তাকে শহিদ বলছেন। ওসামা বিন লাদেনকে জিয়া-উল-হক (পাকিস্তানের সামরিক একনায়ক) পাকিস্তানে নিয়ে এসেছিলেন। আর ইমরান তাকে ‘শহীদ’ বলে আখ্যা দিয়েছেন। এমনকি পারভেজ মোশাররফও ইমরানের গডফাদার ছিলেন।

উল্লেখ্য, ভারত সম্প্রতি এশিয়া-প্যাসিফিক বিভাগ থেকে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে অস্থায়ী সদস্য নির্বাচিত হয়েছে। দেশটি ১৯৩ সদস্যের সাধারণ অধিবেশনে ১৮৪ ভোট পেয়ে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়। নির্বাচিত হওয়ার জন্য প্রয়োজন ছিল ১২৮ ভোট। ২০২১ সালের ১ জানুয়ারি ভারত তার দুই বছরের মেয়াদ শুরু করবে।

সূত্র: অপইন্ডিয়া।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে