প্রাণঘাতী করোনা মহামারীর কারণে এবার স্পর্শ করা যাবেনা কাবা শারীফ।

0

স্টাফ রিপোর্টার:মোরশেদ আলম
মরণব্যাধি করোনা ভাইরাসে বিপর্যস্ত সমগ্র বিশ্ব। এর মধ্যেই এসে পড়েছে মুসলমানদের পবিত্র হজের সময়। তাই করোনা ভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে এবার সীমিত পরিসরে হজ্বের অনুমতি দিয়েছেন সৌদি আরব। দেশটির মাত্র এক হাজার মানুষ এবার হজ করতে পারবেন। এবারই প্রথম বিদেশি কোন মুসলিমরা হজ্বে যেতে পারছেন না।

সৌদি আরবের কর্তৃপক্ষ হতে (প্রেস এজেন্সি) জানায়, করোনা মহামারীর কারণে পবিত্র কাবা শরিফ স্পর্শ করা যাবে না, এবং নামাজের সময় ও কাবা শরিফ তাওয়াফের সময় বাধ্যতামূলক দেড় মিটার দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। এছাড়া এবার হাজি ও আয়োজকদের প্রত্যেকের জন্য সর্বদা মাক্স পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

গতকাল সোমবার সৌদি আরবের রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র (সিডিসি) এক বিবৃতিতে এসব তথ্য জানায়।
এবারের হজ শুরু হবে,১৯ জুলাই থেকে ২ আগস্ট পযর্ন্ত এবং সীমিত সংখ্যক হাজী মিনা, মুজদালিফা ও আরাফাতে যাওয়ার অনুমতি পাবেন।

সৌদি আরবের রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর করোনা মহামারীর কারণে এই বছরে সীমিত আকারে হজ্বের কিছু নতুন বিধিনিষেধ আরোপ করেছেন। যারা হজ্ব করবেন তারা কাবাঘর ও হাজারে আসওয়াদ পাথর ছুঁতে পারবেন না।

হজ্বের বিশেষ অনুমতি ছাড়া ১৯শে জুলাই থেকে হজ্বের পঞ্চম দিনের আনুষ্ঠানিকতা পর্যন্ত কেউই মিনা, মুজদালিফাহ ও আরাফাতে যেতে পারবেন না। হাজীদের পাথর নিক্ষেপের যে রীতি আছে সেখানে বিশেষ ধরনের পাথর ব্যবহার করতে হবে।

যদি কোন হাজীদের মধ্যে করোনা সংক্রামন দেখা দেয় তাহলে চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণের উপর তার হজ্বের বাকি আনুষ্ঠানিকতা নির্ভর করবে। যদি সংক্রামনের পর অসুস্থতা বেশি হয় তাহলে হজে অংশ নিতে দেয়া হবে না।

হাজীদের জন্য আলাদা ভবন, পরিবহন ব্যবস্থা রাখা হবে।
মক্কার এই সুবিশাল মসজিদের সকল ফ্রিজ সরিয়ে নেয়া হবে, যার যার ব্যক্তিগত পানির পাত্রে পানি নিয়ে পান করতে হবে।(সূত্র:আল জাজিরা)

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে