মুসলিম রাষ্ট্র আজারবাইজান কে পরমাণু অস্ত্রের হুমকি আর্মেনিয়ার।

0

স্টাফ রিপোর্টার: মোরশেদ আলম।

আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার সীমান্ত সংঘর্ষ ক্রমেই মোড় নিচ্ছে ভয়াবহ যুদ্ধের দিকে। আর্মেনিয়া সরকার প্রয়োজনে পরমাণু অস্ত্র প্রয়োগেরও হুমকি দিয়েছেন আজারবাইজান কে। মুসলিম রাষ্ট্র আজারবাইজানের হয়ে লড়তে ককেশাস পর্বতে পাকিস্তানী সেনাবাহিনীও হাজির হয়েছে বলে সংবাদ পাওয়া গিয়েছে।

গেল রোববার রাতে আজারবাইজান সেনাবাহিনী নাগোরনো-কারাবাখ সংলগ্ন আর্মেনিয়া-নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলের দখলে নিতে অভিযান চালিয়েছে। এর পর এরপর আজারবাইজান সেনাদের প্রতিহত করে সেখানকার সংখ্যাগরিষ্ঠ আর্মেনীয়ার মিলিশিয়া বাহিনী ‘আর্টসাক ডিফেন্স আর্মি’। এর পর সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন আর্মেনিয়া ফৌজ বাহিনী ও। গেল ছ’দিনের যুদ্ধে উভয় পক্ষেরই বেশ কিছু ট্যাঙ্ক, হেলিকপ্টারসহ ড্রোন বিমান ধ্বংস হয়েছে। দু’দেশের শত শত সেনা সদস্যের সাথে অনেক অসামরিক মানুষও আহত ও নিহত হয়েছেন।

আর্মেনিয়া মুসলিম রাষ্ট্র আজারবাইজান হুমকি দিয়ে বলেছেন, প্রয়োজনে আর্মেনিয়া আজারবাইজানের বিরুদ্ধে পরমাণু অস্ত্রবাহী দূরপাল্লার রুশ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করবেন।

মুসলিম রাষ্ট্র আজারবাইজান ও অমুসলিম রাষ্ট্র আর্মেনিয়ার মধ্যে চলা এই রক্ত যুদ্ধে ইতিমধ্যেই জড়িয়ে পড়েছেন বিশ্বের বেশ কিছু মুসলিম এবং অমুসলিম দেশ দেশ। এরমধ্যে মুসলিম রাষ্ট্র আজারবাইজানকে প্রকাশ্যে সমর্থন জানিয়েছে তুরস্ক। এবং অমুসলিম দেশ খ্রিষ্টান সংখ্যাগরিষ্ঠ আর্মেনিয়ার সাথে যুক্ত হচ্ছেন আমেরিকা, রাশিয়া, ফ্রান্স সহ পশ্চিমা বিশ্ব।

এদিকে মুসলিম রাষ্ট্র আজারবাইজান কে প্রকাশ্যে সমর্থন করা তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িফ এরদোয়ান বলেছেন, আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে চলা যুদ্ধে সামরিক হস্তক্ষেপ না করার বার্তা দিয়েছেন ন্যাটো ও রাশিয়াকে। তুরস্কের পার্লামেন্টের এক বক্তৃতা কালে তিনি বলেছেন,‘অবিলম্বেই আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে যুদ্ধবিরতি কার্যকর করে নাগোরনো-কারাবাখসহ অধিকৃত এলাকাগুলি থেকে আর্মেনিয়ান সেনাবাহিনীকে সরে যেতে হবে। (সূত্র আনন্দবাজার পত্রিকা)

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে