শিকলে বাঁধা সিরিয়ার সেই ক্ষুধার্ত শিশু নাহলার করুন মৃত্যু!

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।
গত (৬ই মে) সিরীয় শিশু শরণার্থিনী নাহলা আল-উছমান (৬) অবশেষে মরেই গেলো! চরম ক্ষুধার্ত অবস্থায় দ্রুত খাবার খেতে গিয়ে মারা যায় বাচ্চাটি। তার শিকলে বাঁধা একটি ছবি নেট দুনিয়ায় তোলপাড় ফেলে দেয়!

সিরিয়ার স্থানীয় মিডিয়া জানিয়েছে, খাঁচায় আটকে বা বেঁধে রাখা শিশু নাহলা আল-উছমান হেপাটাইটিস, অপুষ্টি, অনাহার ও তৃষ্ণায় ইদলিবের ফারাজুল্লাহ শিবিরে মারা গেছে। তার বাবা স্পষ্টতই তাকে মারধর করতেন। তারপরে তাকে বেঁধে বা একটি খাঁচায় আটকে অবহেলায় খাবার না দিয়ে ফেলে রেখেছিলেন। চাপের মুখে তার বাবাকে আটক করতে বাধ্য হয় স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

ক্যাম্পটির সুপারভাইজার হিশাম আলী ওমর বলেন: সারা ক্যাম্পে ঘুরে বেড়ানো আটকাতে তার বাবা তার হাত বা পায়ে শিকলে বেঁধে রাখতেন। আমরা একাধিকবার তাকে শিকল খুলে দিতে কিংবা খাঁচায় আটকে না রাখতে বলেছি। কিন্তু তিনি কখনোই আমাদের কথা মানেননি।

নাহলার ছবি প্রকাশক সিরীয় সাংবাদিক তিরেসী বলেন: নাহলা তার বাবার সাথে থাকতো। তার বাবা তার মাকে তালাক দিয়ে অন্য মহিলাকে বিয়ে করেন এবং নাহলাকে খাঁচায় বেঁধে রাখতেন। কেননা, সে সুস্থ, স্মার্ট ও খুবই চঞ্চল ছিলো। খাবার ও পানির তীব্র অভাবেও সে ক-মাস বেঁচে ছিলো। সে সবার সামনে চেইন বাঁধা অবস্থাই শিবিরে হাঁটতো। খাঁচায় থাকতে থাকতে ওটাই ওর বাড়ী হয়ে গিয়েছিলো! শিশুটি গতকাল (৬ই মে) অপুষ্টি, তৃষ্ণা, হেপাটাইটিস ও অন্যান্য রোগে ভুগে মারা গেছে। উদ্বাস্তু শিবিরে মানবেতর জীবন-যাপন করতে গিয়ে তাকে এসব সহ্য করতে হয়েছে।

একজন টুইটারে লিখেছেন: শিশুটির মারা যাওয়ার আগেই মানুষের মানবতা মরে গেছে।

আরেকজন নাহলার মৃত্যুতে মন্তব্য করেছেন: এটা একটি অবর্ণনীয় অপরাধ।

ঐ খাঁচাটি সিরিয়ার লাখ লাখ শিশুর দুর্ভোগের বিষয়ে মনোযোগ কাড়ে। গৃহযুদ্ধ আর সহিংসতার কবলে পড়ে বাড়ী ছাড়তে বাধ্য হওয়া এমন লাখ লাখ শিশু সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন তাঁবুতে আশ্রয় নিয়েছে। খাবার, শিক্ষা ও চিকিৎসার অধিকার বঞ্চিত এসব শিশু বেঁচে থাকার সংগ্রাম করছে।

দাতব্য গোষ্ঠী সেভ দ্য চিলড্রেন-এর মুখপাত্র আহমাদ বায়রাম বলেন: আমরা সেসব শিশুকে নিয়ে কথা বলছি – যাদের জন্ম তাঁবুতে; প্রথম বৃষ্টির পর, যেগুলো নতুন বিপদ হয়ে ওঠে। তারা ভুলে গেছে – স্বাভাবিক জীবন কেমন হয়। তাদের মাঝে আত্মহত্যার প্রবণতাও বাড়ছে! আমরা ১১ বছর কিংবা আরো কম বয়সীদের আত্মহত্যা করতে দেখেছি!

সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকার ফারজাল্লাহ ক্যাম্পে পরিবারের সাথে বসবাস করতো শিশু নাহলা। ওখানকার ৪২ লাখ বাসিন্দার প্রায় অর্ধেকই যুদ্ধের সময় এলাকা ছেড়ে পালিয়েছেন। আশ্রয় নিয়েছেন অস্থায়ী শিবিরে। দাতব্য গোষ্ঠীগুলো বলছে, ক্যাম্পগুলোর অবস্থা ক্রমেই খারাপ হয়ে উঠছে। বিশেষ করে, শিশুদের জন্যে। অনেক শিশুই পরিবারকে সহায়তা দিতে কাজ করছে আর অপুষ্টির হার বাড়ছেই। ইউনিসেফের মতে, সেখানে প্রায় ৫০ লাখ শিশুর মানবিক সহায়তা দরকার। সুত্র: মিডল ইস্ট মনিটর ও অন্যান্য।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে