সারা বিশ্বে ঘাতক করোনায় আসলে কতজন মারা গিয়েছেন” নাকি সঠিক তথ্য লোকানো হচ্ছে?

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা হু’র সহকারী মহাপরিচালক সামিরা আসমা এক ভার্চুয়াল প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেছেন: সম্ভবত আমরা এমন একটা পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়ে আছি – যেখানে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে করোনাভাইরাসের মহামারীতে মৃতের আসল সংখ্যা কমিয়ে বলা হচ্ছে। সেক্ষেত্রে আমি মনে করি, করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত ৬০ থেকে ৮০ লাখ লোক মারা গিয়ে থাকতে পারে! লাতিন আমেরিকা ও এশীয় দেশগুলোতে করোনায় মৃত্যুর যে সংখ্যা বলা হচ্ছে, আসল সংখ্যা এর চেয়ে দু থেকে তিনগুণ বেশি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তাদের পরিসংখ্যান সম্পর্কিত বার্ষিক প্রতিবেদন তুলে ধরে আরো বলেছে, ২০২০ সালে করোনাভাইরাসে অন্তত ৩০ লাখ মানুষ মারা গেছে। অথচ বিভিন্ন দেশের তরফ থেকে সরকারীভাবে ১২ থেকে ১৮ লাখ মানুষের মৃত্যুর কথা স্বীকার করা হয়েছে। বহু মানুষ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরীক্ষার আগেই মারা গেছেন। অথচ এসব মানুষের ভাইরাস পরীক্ষা করলে, অনেকের মৃত্যুই করোনার কারণে হয়েছে বলে প্রমাণ হবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরিসংখ্যানে বলা হচ্ছে, ২০২০ সালের মে’র মাঝে সারা বিশ্বে ৩৪ লাখ মানুষ মারা গেছে। তবে বাস্তবে এ সংখ্যাও অনেক বেশি হবে।

হু’র ডাটা এনালিস্ট উইলিয়াম মেসেম্বুরি বলেন: করোনাভাইরাসের মহামারীতে যেসব পরোক্ষ কারণে মানুষ মারা গেছে, তার মাঝে রয়েছে হাসপাতালে সক্ষমতার ঘাটতি, আরোপিত লকডাউনের কারণে চলাচলে সমস্যা এবং অন্যান্য কিছু কারণে অনেক রোগী করোনার চিকিৎসা করাতে চাননি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, বিশ্বের যেসব অঞ্চলে নির্ভরযোগ্য রিপোর্ট করার ব্যবস্থা রয়েছে, সেসব জায়গায়ও মৃত্যুর সংখ্যা কমিয়ে দেখানো হয়েছে। এক্ষেত্রে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্টে ইউরোপের কথা উল্লেখ করা হয়েছে – যেখানে করোনাভাইরাসের মহামারীতে মানুষ মারা গেছে অন্তত ১১ থেকে ১২ লাখ। অথচ সরকারীভাবে দেখানো হয়েছে ৬ লাখের মতো। সূত্র: পার্সটুডে।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে