পবিত্র কুরআন যদি হাত থেকে পড়ে যায় সেক্ষেত্রে কোনো সদকা করতে হবে কী?

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।

ইসলামীক বিষয়ে প্রিয় পাঠক পাঠিকাদের জিজ্ঞাসা।

বিষয়ঃ পবিত্র কুরআনুল কারীম যদি কারো হাত কিংবা বুক থেকে জমিনে পড়ে যায় সেক্ষেত্রে কোনো জিনিস সদকা করতে হবে কী?

সম্মানিত মুফতী সাহেব হুজুর।
আমি মক্তবে পড়ার সময় প্রতিদিন সকালে বাসা থেকে কুরআন কারীম বুকে নিয়ে যেতাম। হঠাৎ একদিন আমার বুক থেকে কুরআনুল কারীম পড়ে যায়। তখন মক্তবের হুজুর বলছে, কুরআন কারীম ওযন করে সমপরিমাণ কোনো জিনিস সদকা করার জন্য। তখন আমার মা সমপরিমাণ চাল সদকা করে। আমার জানার বিষয় হলো, শরীয়তে এমন কোনো নিয়ম আছে কী যে, কুরআন কারীম পড়ে গেলে ওযন করে সমপরিমাণ কোনো জিনিস সদকা করতে হবে? জানিয়ে বাধিত করবেন। আল আমিন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে।

উত্তরঃ
ইসলামী শরীয়ত কুরআনুল কারিমের তাযিম ও সম্মান করার নির্দেশ দিয়েছে। সুতরাং কারো হাত থেকে কুরআন শরীফ পড়ে গেলে তাওবা – ইস্তেগফার করতে হবে যেহেতু বেয়াদবি হয়েছে।
কুরআনুল কারিম হাত থেকে পড়ে গেলে ওযন করে সমপরিমাণ কোনো জিনিস সদকা করার বিষয়টি ভিত্তিহীন।

প্রামাণ্য গ্রন্থাবলীঃ
১.
لَّا يَمَسُّهُ إِلَّا الْمُطَهَّرُونَ
অর্থাৎ যারা পাক- পবিত্র তারা ব্যতিত অন্য কেউ একে স্পর্শ করবে না। সুরা ওয়াকিয়া- আয়াত ৭৯

২.
عن ابن عمر قال،قال رسول الله صلى الله عليه وسلم لايمس القرأن إلا طاهر
হযরত ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, রাসূল সা. এরশাদ করেন একমাত্র পবিত্র ব্যক্তি কুরআন স্পর্শ করবে।
আদ্দুররুল মানসুর – ৬/২৩২

৩.
রাসূল সা. আমর বিন হাযমের নিকট যে পত্র লিখেছেন তাতে ছিল,
ألا يَمَسَّ القرآنَ إلَّا طاهِرٌ
পবিত্র ব্যক্তি কুরআন স্পর্শ করবে।
৪. ফাতাওয়া হিন্দিয়াহ -৫/৩১৬

৫.
وَٱسْتَغْفِرُواْ رَبَّكُمْ ثُمَّ تُوبُوٓاْ إِلَيْهِ ۚ إِنَّ رَبِّى رَحِيمٌ وَدُودٌ
তোমরা নিজেদের রবের নিকট ক্ষমা চাও ও তাওবা করো। নিশ্চয়ই আমার রব অতি দয়ালু, প্রেমময়।
সুরা হুদ – আয়াত ৯০
৬.
عَنْ عَائِشَةَ رَضِيَ اللّٰهُ عَنْهَا قَالَتْ: قَالَ رَسُوْلُ اللّٰهِ ﷺ: إِنَّ الْعَبَدَ إِذَا اعْتَرَفَ ثُمَّ تَابَ تَابَ الله عَلَيْهِ.

আয়িশাহ্ (রাঃ) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ বান্দা যখন গুনাহ করার পর তা স্বীকার করে (অনুতপ্ত হয়) আর আল্লাহর কাছে ক্ষমা চায়। আল্লাহ ক্ষমা করে দেন। ( সহীহ বুখারী হাদিস নং ২৬৬১)

উত্তর প্রদান করেছেন,
মুফতী আব্দুল্লাহ ইদরীস- সহকারী শিক্ষা পরিচালক, জামিয়া দারুল উলুম মুহিউস সুন্নাহ আখাউড়া, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে