জানাযার নামায কখন পড়বে?

0

Our Times News

মক্কা রাসূল সা. এর জন্মভূমি। মদিনা রাসূল সা. হিজরতগাহ। মক্কা ও মদিনা অহী নাজিল হওয়ার স্থান। আল্লাহ তায়ালা মক্কা ও মদিনাকে সম্মানিত করেছেন। আমরা ও উভয় শহরকে সম্মান করি। শ্রদ্ধা করি। সম্মান বজায় রেখে কথা বলি। রাসূল সা. নবুওত পেয়ে সর্বপ্রথম মক্কাতেই দাওয়াতের কাজ শুরু করেন। মূলত কোনো স্থানের সম্মান ও মর্যাদার উপযোগী নয়। বরং কোনো ব্যক্তি বা বৈশিষ্ট্যের কারণে সম্মানিত হয়। তাই বলে শরীয়তের সব বিষয়ে মক্কা ও মদিনাকে টেনে আনতে হবে বিষয়টি এমন নয়। বরং শরীয়তের আমল চলবে দলিলের ভিত্তিতে। আর শরীয়তের দলীল চারটি।
১. কুরআন।
২. সুন্নাহ।
৩. ইজমা।
৪. কিয়াস।

আব্দুল্লাহ ইবনে মুবারক রহিমাহুল্লাহ বলেন, যে ব্যক্তি আদবের প্রতি অলসতা প্রদর্শন করে সে সুন্নত থেকে বঞ্চিত হয়। আর যে সুন্নতের প্রতি অলসতা প্রদর্শন করে সে ফরজ থেকে বঞ্চিত হয়। আর যে ফরজের প্রতি অলসতা প্রদর্শন করে সে আল্লাহর মারেফত থেকে বঞ্চিত হয়।

পর কথা হল, কিছু মানুষকে বলতে শুনেছি, মক্কা ও মদিনায় ফরজ নামাজের পর জানাযার নামায আদায় করে সুন্নতের পূর্বে।
তাই তারাও এর দোহাই দিয়ে এর উপর আমল শুরু করেছে।
আজ বিষয়টি দলীলের ভিত্তিতে খতিয়ে দেখব সুন্নতের পর জানাযা পড়া উত্তম নাকি সুন্নতের আগে?

ফরজ নামাজের পর সুন্নত ও জানাযার নামায পড়া উভয়টিই জায়েজ। তবে উত্তম হচ্ছে আগে সুন্নত তারপর জানাযার নামায পড়া।
প্রামাণ্য গ্রন্থাবলীঃ
১. ফাতাওয়া শামী- ৩.৪৭
২. আল বাহরুর রায়েক – ১.৪৪০
৩. ফাতাওয়া তাতারখানিয়া -৩.৮৬
৪. হালবী কাবীর – ৬০৭
৫. ফাতাওয়া রশিদয়া – ৪৩৩
৬. আহসানুল ফাতাওয়া – ৪.২১৮
৭. ফাতাওয়া দারুল উলুম – ৫.২৫৮

লেখক: মাওলানা আব্দুল্লাহ ইদ্রিস।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে