নামাযের মধ্যে পুরুষের জন্য কিপরিমান শরীর ঢেকে রাখা ফরজ?

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।

প্রশ্ন?
আসসালামু আলাইকুম,
জনাব,
আমি জানতে চাই নামজের সময় সতর ঢাকা ফরয। কিন্ত পুরুষের জন্য এই সতর কতটুকু?

আশা করি দলিল সহ উত্তর দিয়ে উপকার করবেন। ধন্যবাদ।

মুহসিন খাঁন
সাইনবোর্ড,

উত্তর
وعليكم السلام ورحمة الله وبراكته

بسم الله الرحمن الرحيم
পুরুষের জন্য সতর হল, পেট, পিঠ ও নাভি থেকে টাখনুর উপর পর্যন্ত ঢেকে রাখা।

আর নামাজের মধ্যে এই স্থানগুল ঢেকে রাখা আবশ্যক।
যদি এই স্থানগুল নামাজের মধ্যে প্রকাশ পেয়ে যায় তাহলে নামাজ পুনরায় আদায় করতে হবে।

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ، قَالَ: قَامَ رَجُلٌ إِلَى النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَسَأَلَهُ عَنِ الصَّلاَةِ فِي الثَّوْبِ الوَاحِدِ، فَقَالَ: «أَوَكُلُّكُمْ يَجِدُ ثَوْبَيْنِ» ثُمَّ سَأَلَ رَجُلٌ عُمَرَ، فَقَالَ: «إِذَا وَسَّعَ اللَّهُ فَأَوْسِعُوا»، جَمَعَ رَجُلٌ عَلَيْهِ ثِيَابَهُ، صَلَّى رَجُلٌ فِي إِزَارٍ وَرِدَاءٍ، فِي إِزَارٍ، وَقَمِيصٍ فِي إِزَارٍ وَقَبَاءٍ، فِي سَرَاوِيلَ وَرِدَاءٍ، فِي سَرَاوِيلَ وَقَمِيصٍ، فِي سَرَاوِيلَ وَقَبَاءٍ، فِي تُبَّانٍ وَقَبَاءٍ، فِي تُبَّانٍ وَقَمِيصٍ،

বিশিষ্ট সাহাবি হযরত আবূ হুরাইরাহ্ (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বর্ণনা করেনঃ
জনৈক ব্যক্তি রাসুলে কারিম সাঃ -এর নিকট দাঁড়িয়ে এক কাপড়ে নামাজ পড়ার হুকুম জিজ্ঞেস করলে। নবী (সাঃ) বলেছেনঃ তোমাদের সকলের কাছে দুইটি করে কাপড় আছে কি?

অতঃপর ঐ এক ব্যক্তি ‘ওমর (রা)-কে জিজ্ঞেস করলেন। ওমর (রাঃ) বলেছেনঃ আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআ’লা যেহেতু তোমাদের সামর্থ্য দিয়েছেন তখন তোমরাও নিজেদের সামর্থ্য প্রকাশ কর।

মানুষ যেন পুরো পোশাক একসাথে পরিধান করে অর্থাৎ মানুষ লুঙ্গি ও চাদর, লুঙ্গি ও জামা, লুঙ্গি ও কাবা, পায়জামা ও চাদর, পায়জামা ও জামা, পায়জামা ও কাবা, জাঙ্গিয়া ও কাবা, জাঙ্গিয়া ও জামা পরে নামাজ আদায় করে।
[সহীহ বুখারী, হাদীস নং-৩৬৫]

عَنْ سَعِيدِ بْنِ الحَارِثِ، قَالَ: سَأَلْنَا جَابِرَ بْنَ عَبْدِ اللَّهِ عَنِ الصَّلاَةِ فِي الثَّوْبِ الوَاحِدِ، فَقَالَ: خَرَجْتُ مَعَ النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فِي بَعْضِ أَسْفَارِهِ، فَجِئْتُ لَيْلَةً لِبَعْضِ أَمْرِي، فَوَجَدْتُهُ يُصَلِّي، وَعَلَيَّ ثَوْبٌ وَاحِدٌ، فَاشْتَمَلْتُ بِهِ وَصَلَّيْتُ إِلَى جَانِبِهِ، فَلَمَّا انْصَرَفَ قَالَ: «مَا السُّرَى يَا جَابِرُ» فَأَخْبَرْتُهُ بِحَاجَتِي، فَلَمَّا فَرَغْتُ قَالَ: «مَا هَذَا الِاشْتِمَالُ الَّذِي رَأَيْتُ»، قُلْتُ: كَانَ ثَوْبٌ – يَعْنِي ضَاقَ – قَالَ: «فَإِنْ كَانَ وَاسِعًا فَالْتَحِفْ بِهِ، وَإِنْ كَانَ ضَيِّقًا فَاتَّزِرْ بِهِ»

হযরত সা‘ঈদ ইবনু হারিস (রহ.) হতে বর্ণিত। তিনি বলেনঃ আমরা জাবির ইবনু ‘আবদুল্লাহ (রাযি.)-কে একটি কাপড়ে নামাজ পড়া সম্পর্কে জিজ্ঞেস করেছিলাম। তিনি বলেছেনঃ আমি মুহাম্মদ (সাঃ) -এর সাথে কোন এক সফরে বের হয়েছিলাম।
এক রাতে আমি কোন প্রয়োজনে তাঁর নিকট গিয়েছিলাম। দেখলাম, তিনি নামাজ রত আছেন। তখন আমার শরীরে মাত্র একটি কাপড় ছিল। আমি কাপড় দিয়ে শরীর জড়িয়ে নিলাম আর তাঁর পার্শ্বে নামাজে দাঁড়ালাম। তিনি নামাজ শেষ করে প্রশ্ন করলেনঃ জাবির! এতো রাতে আসার কারণ কী? তখন আমি রাসুল (সাঃ) আমার প্রয়োজনের কথা জানালাম। আমার কাজ শেষ হলে তিনি বললেনঃ এ কিরূপ জড়ানো অবস্থায় তোমাকে দেখলাম? আমি বললামঃ কাপড় একটিই ছিল (তাই এভাবে করেছি)। তিনি বললেনঃ কাপড় যদি বড় হয়,তাহলে শরীরে জড়িয়ে পরবে। আর যদি ছোট হয় তাহলে লুঙ্গি হিসেবে ব্যবহার করবে।
(সহীহ বোখারী, হাদিস নং ৩৬১)
والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে

মুফতি ইবরাহীম ফরিদ‌।
ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বসুন্ধরা ঢাকা।
 

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে