যে ১০ জন সাহাবী দুনিয়াতেই জান্নাতের সুসংবাদ পেয়েছেন!

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।
আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সাহাবাদের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ হচ্ছেন চার জন খলিফা। তারা হলেন,হজরত আবু বকর সিদ্দিক (রা.) হজরত উমর (রা.) হজরত উসমান (রা.) ও হজরত আলী (রা.) সম্মানিত এই চারজন সাহাবীদের পরবর্তী স্তরে রয়েছেন অবশিষ্ট আশারায়ে মুবাশশারারা। আরবি আশারা শব্দের অর্থ দশ। আর মুবাশশারা শব্দের অর্থ সুসংবাদপ্রাপ্ত। অর্থাৎ যে দশজন সাহাবি দুনিয়াতে তাদের জীবনদশায় বেহেশতের সুসংবাদ পেয়েছেন তাদের আশারায়ে মুবাশশারা বা বেহেশেতের সুসংবাদপ্রাপ্ত দশ সাহাবি বলা হয়।

আবদুর রহমান ইবনে আউফ বর্ণনা করেন:
আল্লাহর নবী (ﷺ) বলেন: “আল্লাহর নবী (ﷺ) কে বলতে শুনেছি যে: দশ জন লোক জান্নাতে যাবে: আবু বকর(রা.) জান্নাতি, উমর(রা.) জান্নাতি, উসমান(রা.) জান্নাতি, আলি(রা.) জান্নাতি, তালহা(রা.) জান্নাতি: যুবাইর ইবনুল আওয়াম(রা.) জান্নাতি, আবদুর রহমান ইবনে আউফ(রা.) জান্নাতি, সাদ ইবনে আবি ওয়াক্কাস(রা.) জান্নাতি,সাঈদ ইবনে যায়িদ(রা.) জান্নাতি, এবং আবু উবাইদা ইবনুল জাররাহ(রা.) জান্নাতি।— তিরমিযী

জান্নাতের সুখবর সম্পর্কে আবু মুসা (রা.) থেকে বর্ণিত- তিনি বলেন, আমি মদিনার একটি বাগানে রাসুল(ﷺ)-এর সঙ্গে ছিলাম। এক ব্যক্তি এসে দরজায় করাঘাত করল। রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন , ‘তার জন্য দরজা খুলে দাও এবং তাকে জান্নাতের সুসংবাদ দাও। আমি দরজা খুলে দেখলাম, তিনি আবু বকর (রা.)। আমি তাকে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ফরমান অনুসারে জান্নাতের সুসংবাদ দিলাম। তখন তিনি মহান আল্লাহর প্রশংসা করলেন। এরপর উমর (রা.) এলেন। রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, ‘তাকে অনুমতি দাও এবং জান্নাতের সুসংবাদ দাও।’ এরপর উসমান (রা.) এলেন এবং অনুমতি চাইলেন। রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, ‘অনুমতি দাও এবং জান্নাতের সুসংবাদ দাও।’ (বুখারি, হাদিস নম্বর : ৬৭৩০)

দশজন জান্নাতের সুসংবাদ প্রাপ্ত সাহাবিদের নামঃ
১/হযরত আবু বকর সিদ্দিক(রা.)
২/হযরত উমর(রা.)
৩/হযরত উসমান(রা.)
৪/হযরত আলি(রা.)
৫/হযরত তালহা(রা.)
৬/হযরত যুবাইর ইবনুল আওয়াম(রা.)
৭/হযরত আবদুর রহমান ইবনে আউফ(রা.)
৮/হযরত সাদ ইবনে আবি ওয়াক্কাস(রা.)
৯/হযরত সাঈদ ইবনে যায়িদ(রা.)
১০/হযরত আবু উবাইদা ইবনুল জাররাহ(রা.)।

আল্লাহ্ রাব্বুল আলামীন আমাদের সকলকে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ও তার প্রিয় সাহাবিদের সাথে জান্নাতে প্রবেশ করার তাওফীক দান করুন” আমীন।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে