গরমকালে শরীরকে সুস্থ ও সতেজ রাখতে যা করবেন।

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।
আমাদের প্রায় সকলেরই গরমকালে ভোগান্তিটা যেন একটু বেশি হয়ে থাকে। তাই আমাদের খাবারের দিকটা একটু বেশি খেয়াল রাখা উচিত। গরমে আমাদের নানান রকম সমস্যায় পড়তে হয়। গরমের কারণে মুখে ব্রণ, বমি বমি ভাব, ক্লান্তি, ডায়রিয়া,বিশেষ করে শরীরে পানিশূন্যতা দেখা দেয়। তাই আমাদের দৈনিক ৩ থেকে ৪ লিটার পানি খাওয়া উচিত। তবে এত পরিমাণে সাদা পানি খাওয়া খুব কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়। তাই পানির পরিবর্তে ফলের রস, লেবুর শরবত, ইসবগুলেরভূসি ভিজিয়ে খেতে পারেন। তাছাড়া এমন অনেক খাবার রয়েছে যেগুলো আমাদের শরীরকে ঠাণ্ডা রাখতে ও পানি শূন্যতা দূর করতে সাহায্য করে।

১. ডাব:-প্রচণ্ড গরমে আমাদের শরীরকে ঠাণ্ডা রাখতে ডাবের পানির কোন তুলনা নেই।

২. শসা:-শসা আমাদের শরীরের তাপমাত্রা কমিয়ে ভিতর থেকে ঠান্ডা করে দেয়, তাই গরমে প্রচুর পরিমাণে শসা বা শসার সালাদ খাওয়ার অভ্যাস করুন।

৩. ডালিম:- প্রতিদিন এক গ্লাস ডালিমের রস খেলে, শরীরের পানির ঘাটতি দূর হয়।

৪. বাঙ্গি:-গরমকালে বাঙ্গি বেশ জনপ্রিয়, ঠিক তেমনি শরীরকে ঠাণ্ডা রাখতে বাঙ্গির কোনো জুড়ি নেই।

৫. মৌরি/শাহীজিরা:-একমুঠো পরিমাণ মৌরি এক গ্লাস পানিতে সারারাত ভিজিয়ে রেখে, সকালবেলা পান করলে, খুব ভালো উপকার পাওয়া যায়।

৬.তিল:- শরীরকে ঠাণ্ডা রাখতে তিল ভিজানো পানির ও কোন তুলনা নেই।

৭.পুদিনাপাতা:- শরীরকে ঠান্ডা রাখতে প্রতিদিন এক গ্লাস পুদিনাপাতার রস খেতে পারেন।

৮.দুধ:- গরমে ক্লান্তি দূর করতে প্রতিদিন এক গ্লাস দুধের সাথে এক চা চামচ মধু মিশিয়ে খেতে পারেন।

উপদেশ:- গরমে প্রচুর পরিমাণে শরবত/জুস খেতে বলা হয়। তবে সেটা অবশ্যই চিনি ছাড়া খেতে হবে। অতিরিক্ত চিনি খেলে ওজন বেড়ে যেতে পারে।

* রোদ থেকে এসে সাথে সাথে খাবার বা কোল্ড ড্রীং খাওয়ার অভ্যাস পরিহার করুন।
কেননা শরীর ক্লান্ত থাকার ফলে পাকস্থলীর কার্যক্ষমতা দূর্বল হয়ে পড়ে।

* তেল মশলা ও ভাজা পোড়া খাবার না খেয়ে, শাকসবজি খাওয়ার অভ্যাস করুন।

* মুসুর ডাল পাতলা করে রান্না করে খেতে পারেন। রান্না করার আগে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন, তাহলে এসিডিটি হওয়ার চান্স কমে যাবে।

*গরমে চা কফি না খাওয়াই ভালো, খুব প্রয়োজন হলে লিকার চা খেতে পারেন।

* বাহিরের খোলা ফলের রস খাওয়া থেকে বিরত থাকুন

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে