ঘরোয়া পদ্ধতিতে বিরক্তিকর ব্রণ দূর করতে করনীয়!

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।
গরমে ত্বক নিয়ে অনেকেই দুশ্চিন্তায় থাকেন। ধুলা, ময়লা, ঘাম, দূষণের সঙ্গে তাল মিলিয়ে মুখে দেখা দেয় ব্রণ। ব্রণের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে, অনেকেই ভরসা করেন, ঘরোয়া পদ্ধতির উপর।

বিভিন্ন আয়ুর্বেদিক উপাদানে ব্রণ দ্রুত সারাতে পারেন।

১.তুলসি আর হলুদ: এই দুটি উপাদান দিয়েই বানিয়ে নিন ব্রণের ওষুধ। কাঁচা হলুদ ২চা চামচ পরিমাণ বেটে নিন। একইভাবে ২০-২৫টি তুলসি পাতা ভালো করে ধুয়ে বাটুন।

তুলসি পাতা বাটা ও কাঁচা হলুদ বাটা একসঙ্গে মিশিয়ে ব্রণের উপরে লাগিয়ে রাখুন, শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলবেন। প্রতিদিন তিন বার লাগাতে হবে। সারাদিনের জন্য একবারে বানিয়ে কৌটায় ভরে ফ্রিজে রেখে দিতে পারেন।

২. নিমপাতা আর গোলাপজল: নিমপাতা খুবই ভালো অ্যান্টিসেপটিক আর গোলাপজল ত্বক স্নিগ্ধ আর সতেজ রাখে। পাতাসহ চার পাঁচটি নিমের ডাল ভেঙে নিন। পাতাগুলো ধুয়ে মিনিট দুয়েক ফোটান। তারপর পানি থেকে পাতা তুলে, বেটে পেস্ট করে নিন।তারপর ২চা চামচ নিমপাতা বাটার সাথে, ২চা চামচ পরিমাণ গোলাপজল মেশান।

এই মিশ্রণটা ব্রণের উপরে লাগিয়ে, শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণ দ্রুত ভালো হয়ে যায়, ও ব্যথাও কমে যায়।

৩. মধু: ব্যাকটেরিয়া নষ্ট করার গুণ রয়েছে মধুতে। ১চা-চামচ খাঁটি মধুতে অল্প তুলা ডুবিয়ে ব্রণের উপরে লাগিয়ে রেখে দিন। আধা ঘণ্টা পরে ধুয়ে ফেলুন। দিনে কয়েকবার লাগালেই ব্রণ কমে যাবে।

৪. লেবু আর পানি: লেবুর ভিটামিন সি ব্রণ কমাতে দারুণ কাজ করে। ২টি পাতিলেবুর রস বের করে নিন। এই রসে ২চা চামচ পানি মেশান। এই মিশ্রণে তুলা ভিজিয়ে ব্রণের উপরে লাগিয়ে দিন। খুব দ্রুত ব্রণ শুকিয়ে যাবে।

সতর্কতাঃ
তবে সেনসিটিভ ত্বকের জন্য লেবুর রসের পরিবর্তে, আলুর রস অথবা শসার রস ব্যবহার করতে পারেন। এ ক্ষেত্রে লেবুর রস এড়িয়ে যাওয়াই ভালো, কারণ লেবুর রস থেকে সেনসিটিভ ত্বকে জ্বালাপোড়া করতে পারে।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে