ত্বকের যত্নে তরমুজে রয়েছে আশ্চর্য ঔষধি গুণ!

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।
আমাদের দেশে তরমুজ একটি জনপ্রিয় ফল। গরমের মৌসুমী এই ফলটি আমার শরীর ও ত্বকের জন্য খুবই উপকারী একটি ফল। এই ফলটির মধ্যে ৯০ শতাংশেরও বেশি পানি রয়েছে। তাই এই তরমুজ আমাদের শরীরের পানি শূন্যতা বজায় রাখতে সাহায্য করে। শুধু তাই নয়! তারুণ্য ধরে রাখার জন্যও এই ফলটি খুবই কার্যকরী।

এবার আমরা তরমুজের গুণাগুণ সম্পর্কে জেনে নিব।

তরমুজে রয়েছে অ্যামিনো অ্যাসিড,যা ত্বকের কোলাজেন নামক উপাদান বৃদ্ধি করে, এছাড়া তরমুজে রয়েছে, ভিটামিন এ, বি, সি, এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, এই উপাদান গুলো আমাদের ত্বকের শুষ্কতা ও বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে। তরমুজ পানি এবং ইলেক্ট্রোলাইট সমৃদ্ধ যা খাদ্য হজম ও কিডনির জন্য খুবই উপকারী।

তরমুজের ব্যবহার!
তরমুজ ত্বকের যেকোন সমস্যায় ব্যবহার করা যাবে,এবং ত্বকের যত্নে এর প্রতিটি অংশই ব্যবহার করতে পারবেন। তাছাড়া ময়েশ্চারাইজার হিসেবে তরমুজ অতুলনীয়, তাই এক টুকরো তরমুজ নিয়ে মুখে আলতো ভাবে ঘসে নিন,তারপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সান বার্ন, সূক্ষ্ম রেখা বা তৈলাক্ত ত্বকের জন্য তরমুজের ফেসপ্যাক ব্যবহার করতে পারেন‌। প্যাকটির জন্য, এক টেবিল চামচ তরমুজের রস, এক টেবিল চামচ শসার রস একসাথে মিশিয়ে মুখে ও গলায় ব্যবহার করতে পারেন,এতে ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি পাবে ও ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখবে।

গরমে ব্রনের সমস্যা একটু বেশিই দেখা দেয়। এক্ষেত্রে তরমুজের রস এবং লেবুর রস একসাথে মিশিয়ে ম্যাসাজ করুন, ১০ মিনিট পরে ধুয়ে ফেলতে হবে,এভাবে সপ্তাহে তিন দিন করতে পারেন। তাছাড়া শুষ্ক ত্বকের জন্য পাকা কলা,দুধ ও তরমুজ একসাথে মিশিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে, সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন।

তরমুজের বীজেও রয়েছে অনেক উপকারিতা।
তরমুজের বীজ শুকিয়ে গুরা করে তার সাথে যেকোন ক্লিনজার মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। এটি মুখের কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে।

তরমুজে রয়েছে আরও গুনাগুন!
যেহুতু তরমুজে রয়েছে ভিটামিন-এ, তাই এটি চোখের নিচের কালো দাগ, ও অতিরিক্ত তৈলাক্ত ভাব দূর করতে সাহায্য করে। এবং তরমুজের অ্যামিনো অ্যাসিড মাথার ত্বক ও চুলের জন্য খুবই উপকারি।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে