শরীর ও ত্বকের জন্য পুদিনা পাতার রয়েছে অসাধারণ ঔষধি গুন।

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।
আমাদের দেশে দিন দিন পুদিনা পাতার কদর যেন বেড়েই চলেছে। পুদিনা পাতার শরবত, চাটনি বেশ জনপ্রিয়। তাছাড়া এতে রয়েছে অনেক ঔষধি গুণাগুণ।

পুদিনা পাতার গুনাগুন!
১.পুদিনা পাতার রস নিয়মিত খেলে ব্রেস্ট ক্যান্সার, ফুসফুস এবং ত্বকের ক্যান্সার থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

২.সারাদিনের ক্লান্তি দূর করতে, এক কাপ পুদিনা পাতার রস এবং একটি পাতি লেবুর রস একসাথে মিশিয়ে খেতে পারেন।

৩.পুদিনাপাতা মানবদেহের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং মুখের রুচি বাড়াতেও বেশ কার্যকরী।

৪.শরীরের যেকোনো ব্যথার জন্য পুদিনা পাতা বেশ কার্যকরী।পুদিনা পাতা দিয়ে চা বানিয়ে খেলে শরীর ব্যথা দূর হয়। তাছাড়া পেট ব্যথার জন্যও পুদিনাপাতা খুব উপকারী।

৫.যাদের মাথায় উকুন রয়েছে, তারা পুদিনা পাতার রস মাথায় দিলে উকুন চলে যাবে।

৬.সর্দি, কাশি, শ্বাসকষ্টের মতো মারাত্মক সমস্যার তাৎক্ষণিক সমাধান দিতে পারে এই পুদিনা পাতা। এসব সমস্যার সমাধান পেতে পুদিনা পাতা এবং পানি একসাথে ভালো করে ফুঁটিয়ে ভাব নিতে পারেন। এতে তাৎক্ষণিক উপকার পাওয়া যাবে।

৭.গরমকালে পুদিনা পাতার শরবত শরীরকে ঠাণ্ডা রাখে।

৮.পুদিনা পাতায় রয়েছে অ্যাস্ট্রিনজেন্ট, যার ফলে, এলার্জি, ঘামাচি, ব্যাকটেরিয়া জনিত দুর্গন্ধ থেকে রেহাই পেতে পারেন। তারজন্য বেশি করে পুদিনা পাতার রস করে, ডিপফ্রিজে রেখে বরফ করে নিতে পারেন। গোসলের সময় কয়েক টুকরো পুদিনা পাতার বরফ গোসলের পানিতে দিয়ে গোসল করে নিতে পারেন।

৯.কোন ব্যক্তি যদি অজ্ঞান হয়ে পড়ে, কয়েকটি পুদিনাপাতা তার নাকের কাছে ধরে রাখলে, দেখবেন জ্ঞান ফিরে পেয়েছে।

১০.যারা পেটের নানান সমস্যায় ভুগছেন বা যাদের হজমের সমস্যা রয়েছে, তারা নিয়মিত খাবারের পর পুদিনা পাতার চা খেতে পারেন। অথবা চার-পাঁচটি তাজা পুদিনা পাতা চিবিয়ে রস খেতে পারেন। এতে খুব ভালো উপকার পাওয়া যাবে।

রূপচর্চার জন্যও পুদিনাপাতার রয়েছে অতুলনীয় গুনাগুন।
পুদিনা পাতার রস, শসার রস এবং গোলাপজল একসাথে মিশিয়ে ত্বকে লাগালে, ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়। ব্রণ ও তৈলাক্ত ত্বকের জন্য, পুদিনা পাতা পেস্ট করে মুখে লাগিয়ে রাখুন। তারপর দু-তিন ঘণ্টা পর ধুয়ে ফেলুন।এতে ব্রণ কমে যাবে। তাছাড়া রোদে পোড়া ত্বকের জ্বালা পোড়ার জন্য ১ চা-চামচ পুদিনা পাতার রস এবং এক চা-চামচ অ্যালোভেরা জেল একসাথে মিশিয়ে মুখে লাগান তারপর ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে