রাখে আল্লাহ্ মারে কে?! ভয়ংকর এক সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত মায়ের গর্ভ থেকেই জন্ম নিলো জীবিত শিশু!

0

আওয়ার টাইমস নিউজ।

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট: মহান আল্লাহ্ রাব্বুল আলামীনের অতি আশ্চর্য কুদরত দেখল দেশবাসী! ময়মনসিংহে ভয়াবহ একটি সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত এক মায়ের গর্ভ থেকে আশ্চর্যজনকভাবে একটি জীবিত কন্যা শিশুর জন্ম হয়েছে।

শনিবার (১৬ জুলাই) দুপুরে ময়মনসিংহের ত্রিশালে ট্রাকের চাপায় পিষ্ট হয়ে একই পরিবারের তিন জনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়। ওই সময় মৃত মায়ের গর্ভ থেকে একটি জীবিত শিশুটির জন্ম হয়। শিশুটিকে ময়মনসিংহ সিবিএমসিবি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মর্মান্তিক ওই সড়ক দুর্ঘটনায় শিশুটির একটি হাতের হাড় ভেঙে গিয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

জানা গিয়েছে,৭ মাস গর্ভে থাকা সন্তান কেমন আছে তা জানতে শনিবার (১৬ জুলাই) ত্রিশালের গর্ভবতী রত্না বেগম গিয়েছিলেন আট্রাসনোগ্রাম করাতে। তবে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ত্রিশালে ট্রাকচাপায় পড়ে রত্না, তার স্বামী ও তাদের ছয় বছরের মেয়ে নিহত হন। ঠিক ওই সময়ই দুর্ঘটনাস্থলেই রত্না নামের মৃত মায়ের গর্ভ থেকে পৃথিবীতে আসে একটি কন্যা শিশু। উপস্থিত মানুষ যখন শিশুটির কান্নার আওয়াজ শুনতে পায়,পরে দ্রুত শিশুটিকে উদ্ধার করে প্রথমে ত্রিশাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়, এরপর উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ সিবিএমসিবি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

পরে পরীক্ষা-নীরিক্ষার পর জানা গিয়েছে, কিছুক্ষণ আগে মা বাবা হারানো শিশুটির একটি হাতের হাড় ভেঙ্গে গিয়েছে। তবে শিশুটি আশঙ্কামুক্ত আছেন বলে জানিয়েছে চিকিৎসকরা। এ নিয়ে সিবিএমসিবি হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার আরিফ আল নুর জানিয়েছেন, শিশুটিকে যখন আমাদের কাছে নিয়ে আসা হয়,তখন তার শারীরিক কন্ডিশন ভালোই ছিল। তবে একটি হাত নাড়াচাড়া না করার ফলে আমরা ফ্রাকচার সন্দেহে তাকে হাসপাতালে ভর্তি নিই। পরে পরীক্ষা করে দেখি তার একটি হাতের হাড় ভেঙে গিয়েছে।

এদিকে ঘাতক ট্রাকটিকে আটক করা হয়েছে জানিয়েছেন ত্রিশাল থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা মাইনুউদ্দিন।
দুর্ঘটের বিষয়ে পুলিশ কর্মকর্তা মাইনুদ্দিন জানান, ঘাতক ট্রাকটির সামনে একটি রিকশা থাকায় ট্রাকটি গতি সামলাতে পারেনি। এক পর্যায়ে রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়া ওই তিনজন পথচারীকে সজোরে ধাক্কা দিলে এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান স্বামী স্ত্রী ও তাদের ছয় বছরের কন্যা শিশু।

কিন্তু আল্লাহর মহিমায় অতি আশ্চর্যজনকভাবে মৃত মায়ের পেটে থাকার কন্যা শিশুটি বেঁচে যায়! ট্রাকটির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা। মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনায় ওই এলাকাটিতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মৃতদের আত্মীয়-স্বজন ছাড়াও সাধারণ মানুষও কাঁদছে।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে