হাইকোর্ট থেকে জামিন পেলেন সংগ্রাম পত্রিকার সম্পাদক।

0

নিজস্ব প্রতিবেদক।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকার সম্পাদক আবুল আসাদ ১ বছরের জামিন দিয়েছেন বাংলাদেশ হাইকোর্ট।

হাইকোর্টের বিচারপতি মো. এমদাদুল হক এবং বিচারপতি মো.আকরাম হোসেন চৌধুরীর হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর রুলসহ এ আদেশ দেন। আদালতে আবুল আসাদের জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খন্দকার মাহবুব ও মোহাম্মদ শিশির মনির। আর রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল গিয়াস উদ্দিন।

এদিকে গত ১১ মে ভার্চুয়াল হাইকোর্ট চালু হওয়ার দিনই আবুল আসাদের জামিন চেয়ে আবেদন করেছিলেন তার আইনজীবীরা। পরে ১৩ মে বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিমের ভার্চুয়াল বেঞ্চ আবুল আসাদের জামিন না মঞ্জুর করে দিয়ে এই আবেদনটি হাইকোর্টের নিয়মিত বেঞ্চে উপস্থাপন করতে বলেন।

এরপর আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির বলেন, সেই জামিনের আবেদনটি উপস্থাপন করা হলে আদালত সম্পাদক আবুল আসাদের জামিন প্রশ্নে রুল জারির পাশাপাশি জামিন দিয়ে দেন।

২০১৩ সালের ১২ ডিসেম্বর একাত্তরের যুদ্ধাপরাধের দায়ে ফাঁসি কার্যকর করা হয় ‘কাদের মোল্লার। আর সেই দিনেরই স্মরণে জামায়াতে ইসলামীর মুখপত্র হিসেবে পরিচিত দৈনিক সংগ্রামের প্রথম পাতায় একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়, যার শিরোনাম ছিল ‘আজ শহীদ আবদুল কাদের মোল্লার ৬ষ্ঠ শাহাদাতবার্ষিকী।
পরে এই প্রতিবেদনের প্রতিবাদে গত বছর ১৩ ডিসেম্বর দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রতিবাদ সমাবেশ করে এবং সংগ্রাম পত্রিকার একাধিক কপি পোড়ান বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মীরা। এর পরে ঐদিন বিকেলেই দৈনিক সংগ্রামের কার্যালয় ঘেরাও ও ভাঙচুর করে বিক্ষুব্ধ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। ঘটনার পর ঠিক ঐ দিন রাতেই দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকার সম্পাদক আবুল আসাদ কে হাতিরঝিল পুলিশ থানা নিয়ে যায়। আবুল আসাদকে গ্রেপ্তার করে পরের দিন ১৫ ডিসেম্বর তাঁকে আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়। রিমান্ড শেষে আবুল আসাদ কে ১৮ ডিসেম্বর ঢাকার হাকিম আদালতে হাজির করেন তদন্ত কর্মকর্তা হাতিরঝিল থানার পরিদর্শক (অপারেশনস) গোলাম আযম। আর সে আদালতে আবুল আসাদ জামিন চাইলে বিচারক তার জামিনের আবেদন নাকচ করে তাকে পুনরায় কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে