ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক গড়তে ইন্দোনেশিয়াকে কয়েকশো কোটি ডলার ঘুষ দিতে চায় আমেরিকা!

0

Our Times News

ক্ষমতা থেকে বিদায় বেলায়ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে বিভিন্ন মুসলিম দেশের ওপর চাপ অব্যাহত রেখেছেন। এ পর্যায়ে লোক সংখ্যায় সবচেয়ে বড় মুসলিম দেশ ইন্দোনেশিয়াকে কয়েকশো কোটি ডলারের সহযোগিতার নামে ঘুষ দেয়ার প্রস্তাব দিয়েছে তার প্রশাসন! তবে আমেরিকা দীর্ঘদিন ধরে দেশটির ওপর নানা চাপ সৃষ্টি এবং প্রলোভন দেখানো সত্বেও জাকার্তা এ ব্যাপারে অনীহা প্রকাশ করে এসেছে।

আমেরিকার ইন্টারন্যাশনাল ডেভলপমেন্ট ফাইন্যান্স কর্পোরেশন বা ডিএফসি হচ্ছে, মার্কিন সরকারের একটি প্রতিষ্ঠান – যারা বিদেশে অর্থ বিনিয়োগ করে থাকে। এ সংস্থার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা অ্যাডাম বোয়েলার পবিত্র জেরুজালেমের আল-কুদস শহরের একটি হোটেলে সোমবার ঘোষণা করেছেন যে, ইন্দোনেশিয়া ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করলে, কয়েকশো কোটি ডলার পাবে। আমরা বিষয়টি নিয়ে ইন্দোনেশিয়ার সাথে কথা বলছি। তারা প্রস্তুত হলে, আমরাও প্রস্তুত এবং আমরা তখন খুশি হবো। এমনকি বর্তমানে আমরা যে অর্থনৈতিক সহযোগিতা করছি – তার চেয়ে ইন্দোনেশিয়াকে আরো অনেক বেশি সহযোগিতা দেবো। সেক্ষেত্রে ডিএফসি ইন্দোনেশিয়াকে ১০০ বা ২০০ কোটি ডলার দিলেও আমি অবাক হবো না।

গত সপ্তাহে ইসরাইলের গণমাধ্যম দাবি করেছে যে, তেল আবিবের সঙ্গে নাকি সম্পর্ক স্বাভাবিক করার উদ্যোগ নিচ্ছে জাকার্তা। তবে ইন্দোনেশীয় সরকার ঐ খবর নাকচ করে দিয়েছে।

এদিকে, তিউনিশিয়া বলেছে, ফিলিস্তিন ইস্যুতে তার অবস্থান আগের মতোই আছে এবং ইসরাইলকে স্বীকৃতি দেবে না তিউনিস।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে যে, তিউনিশীয় সরকার নাকি ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার জন্যে আগ্রহী হয়ে উঠেছে। এসব খবর নাকচ করে দিয়ে বুধবার তিউনিশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা মরক্কোর পথ অনুসরণ করবে না। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে যেসব পরিবর্তন হচ্ছে, তার কারণে ফিলিস্তিনিদের ন্যায্য অধিকারের ব্যাপারে তিউনিশিয়ার অনুসৃত নীতিতে কোনো পরিবর্তন আসবে না। তিউনিস যে নীতি অনুসরণ করে – এসব ভিত্তিহীন খবর তার সাথে সাংঘর্ষিক। তিউনিস সরকার মনে করে – ফিলিস্তিনীদের আত্মনিয়ন্ত্রণ ও স্বাধীন রাষ্ট্র গঠনের অধিকার রয়েছে।

ইসরাইলের সঙ্গে কয়েকটি আরব দেশ যখন সম্পর্ক স্বাভাবিক করেছে এবং এ ইস্যুতে বিভিন্ন মুসলিম দেশের ওপর যখন চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে – তখন তিউনিশিয়া তার অবস্থান পরিষ্কার করলো। ইতোমধ্যে উত্তর আফ্রিকার দেশ মরক্কো ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার পদক্ষেপ নিয়েছে। সূত্র: আরব নিউজ ও পার্সটুডে।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে