ঋণের বোঝা সইতে না পেরে স্ত্রীর ও একমাত্র সন্তানসহ গায়ে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যা করলেন এক ব্যবসায়ী

0

আওয়ার টাইমস নিউজ।

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ঋণের বোঝা সইতে না পেরে নিজের গাড়িতে স্ত্রী-ও সন্তানকে নিয়ে গায়ে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যা করলেন রামরাজ ভাট (৫৭) নামে এক ঋণগ্রস্ত ব্যবসায়ী!

‌ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, অগ্নিদগ্ধ হয়ে রামরাজ ভাটের মর্মান্তিক মৃত্যু হলেও হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আছেন তার স্ত্রী সঙ্গীতা (৫৭) ও ছেলে নন্দন (২৫)। মর্মান্তিক দুঃখজনক এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের নাগপুরে।

ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, আত্মহত্যা করা ব্যবসায়ী রামরাজ ভাট অনেক ঋণগ্রস্ত হয়ে গিয়েছিলেন। মানুষের পাওয়া ঋণ পরিশোধ করতে না পেরেই স্ত্রী ও একমাত্র ছেলেকে নিয়ে আগুন পুড়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন তিনি।

গতকাল মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) দুপুরের দিকে খাবার শখাওয়ার জন্য স্ত্রী এবং ছেলেকে হোটেলে নিয়ে যাওয়ার কথা বলেছিলেন রামরাজ ভাট। পরে গাড়িতে করে স্ত্রী ও ছেলেকে নিয়ে হোটেলের উদ্দেশে রওনা দেন তিনি। কিন্তু হোটেলে না গিয়ে তিনি মাঝপথে একটি ফাঁকা রাস্তায় গাড়ি দাঁড় করান। এরপর হঠাৎ করে রামরাজ নিজ গাড়িতে পেট্রল ঢালতে শুরু করেন। এরপর নিজের সারা শরীরে পেট্রোল ঢেলে দিয়ে স্ত্রী ও ছেলের গায়েও পেট্রল ঢেলে দেন তিনি, পরে গাড়িসহ সবার গায়ে আগুন লাগিয়ে দেন ঋণগ্রস্ত রামরাজ ভাট!

এদিকে এই মর্মান্তিক ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, তারা হঠাৎ করে দেখতে পায় একটি গাড়িতে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলছিল। জ্বলন্ত গাড়ি থেকে রামরাজের স্ত্রী ও ছেলে কোনোমতে দরজা খুলে বেরিয়ে আসেন। পরে সেখানকার স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের দু’জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়!

পুলিশ জানিয়েছে, রামরাজ ভাটের বাড়ি থেকে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে পুলিশ। মূলত ওই সুইসাইড নোটে লিখা ছিল, তিনি ঋণের বোঝা সইতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে