হাদীসের আলোকে ঈদের দিনের সুন্নতসমূহ।

0

আওয়ার টাইমস্ নিউজ।
প্রতিটি ধর্মেই আনন্দ উৎসব রয়েছে। হিন্দু-বৌদ্ধ ইহুদি-খ্রিস্টান সহ আর যত ধর্ম রয়েছে সকলেরই একটি আনন্দ উদযাপনের দিন রয়েছে। তেমনি মুসলমানদের আনন্দ উদযাপনের দুটি দিন রয়েছে। তার মধ্য থেকে একটি হল ঈদুল ফিতর বা রোজার ঈদ যেটা রমজানের পর উদযাপন করা হয়ে থাকে। আর দ্বিতীয় আরেকটি হলো ঈদুল আযহা বা কোরবানির ঈদ অর্থাৎ হজের মৌসুমে হজ আদায় করার পর যেই ঈদ উদযাপন করা হয় সেটা হলো ঈদুল আযহা ।

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন-‘আয়িশাহ্ (রাযি.) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, (একদিন আমার ঘরে) আবূ বকর (রাযি.) এলেন তখন আমার কাছে আনসারী দু’টি মেয়ে বু‘আস যুদ্ধের দিন আনসারীগণ পরস্পর যা বলেছিলেন সে সম্পর্কে গান গাইছিল। তিনি বলেন, তারা কোন পেশাদার গায়িকা ছিল না। আবূ বাকর (রাযি.) বললেন, আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -এর ঘরে শয়তানী বাদ্যযন্ত্র। আর এটি ছিল ‘ঈদের দিন। তখন আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেনঃ হে আবূ বাকর! প্রত্যেক জাতির জন্যই আনন্দ উৎসব রয়েছে আর এ হলো আমাদের আনন্দের দিন।

ইসলাম যেহেতু একটি পূর্ণাঙ্গ জীবন ব্যবস্থা তাই ইসলামে সবকিছুর একটি নিয়ম-নীতি রয়েছে। ঈদের দিনেরও কিছু নিয়ম-নীতি রয়েছে। মুসলমানদের জন্য কোরআন সুন্নাহ নিয়ম নীতি অনুযায়ী ঈদ উদযাপন করা উচিত। কুরআন-সুন্নাহর নিয়ম নীতির বিপরীত হলে সাওয়াব অর্জনের পরিবর্তে গুনাহ অর্জন হবে।

মুসলমানদের ঈদ যেন অন্যান্য ধর্মের মত বেহায়াপনা অশ্লীলতা নগ্নতায় ভরে না যায় । মুসলমানদের দুই ঈদের মধ্যে যথেষ্ট পরিমাণে আনন্দ খুশি উপভোগ করার সুযোগ রয়েছে। আনন্দ উৎসব উপভোগ করতে গিয়ে যেন ইসলামের পরিপন্থী কোন কাজ না হয়ে যায়। গুনাহের কাজে যেন লিপ্ত না হয়ে যায়। সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। ঈদের দিনের সুন্নতগুলো প্রতি লক্ষ করলে আশা করা যায় গুনাহের কাজ থেকে বাঁচা যাবে।

নিন্মে ঈদের দিনের সুন্নতসমূহ উল্লেখ করা হলো।

১.অন্যদিনের তুলনায় সকালে ঘুম থেকে জাগ্রত হওয়া (বায়হাকী, হাদিস নং ৬১২৬) ২.মিসওয়াক করা (তাবয়ীনুল হাকায়েক-১/৫৩৮)

৩.গোসল করা। হাদীসে এসেছে- রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দুই ঈদের দিন গোসল করতেন। (মুসনাদে বাযযার হাদিস নং ৩৮৮০) ইবনে উমর রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, তিনি ঈদুল ফিতরের দিন ঈদগাহে যাওয়ার পূর্বে গোসল করতেন। ( মুয়াত্তা ইমাম মালেক হাদিস নং ৬০৯)

৪.শরীয়তসম্মত সাজসজ্জা করা। (বুখারি, হাদিস নং ৯৪৮)
৫.সমর্থন অনুপাতে উত্তম পোষাক পরিধান করা। ইবনে ওমর রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত আছে যে, তিনি দুই ঈদের দিনে সুন্দরতম পোশাক পরিধান করতেন। (বায়হাকী -১৯০১ )
৬.সুগন্ধি ব্যবহার করা। (মুস্তাদরাকে হাকেম, হাদিস নং ৭৫৭০)
৭.ঈদুল ফিতরের দিন ঈদগাহে যাওয়ার আগে মিষ্টিজাতীয় যেমন খেজুর ইত্যাদি খাওয়া। তবে ঈদুল আযহাতে কিছু না খেয়ে ঈদের নামাজ নামাজের পর নিজের কোরবানির গোশত আহার করা উত্তম। বুরাইদা ( রা.) থেকে বর্ণিত, নবী কারিম সা. ঈদুল ফিতরের দিনে না খেয়ে বের হতেন না।, আর ঈদুল আযহার দিনে ঈদের নামাজের পূর্বে খেতেন না। সালাত থেকে ফিরপ এসে কোরবানীর গোশত খেতেন। (আহমদ: ১৪২২) আনাস রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন: রাসুল সা. ঈদুল ফিতরের দিন কয়েকটি খেজুর না খেয়ে বের হতেন না, আর খেজুর খেতেন বে-জোড় সংখ্যায়। (বুখারী: ৯০০) ৮.সকাল সকাল ঈদগাহে যাওয়া। (আবু দাউদ, হাদিস নং-১১৫৭)

৯.ঈদুল ফিতরের দিন ঈদগাহে যাওয়ার পূর্বে সাদকায়ে ফিতর আদায় করা। ইবনু ওমর রাদিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম লোকদেরকে ঈদের নামাযের উদ্দেশ্যে বের হওয়ার পূর্বে সদকাতুল ফিতর আদায় করার নির্দেশ দেন। ( বোখারী হাদিস নং ১৪২১)
১০. ষপায়ে হেঁটে ঈদগাহে যাওয়া। আলী রাযিআল্লাহু তা’আলা আনহু থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন- সুন্নত হলো ঈদগাহে পায়ে হেঁটে যাওয়া।( তিরমিজি: ১৮৭)

১১. ঈদগাহে নামাজ আদায় করা বিনা প্রয়োজনে মসজিদে আদায় না করা। ( বুখারী, হাদিস নং ৯৫৬,আবু দাউদ, হাদিস নং ১১৫৮)

১২. যে রাস্তায় ঈদগায় যাবে, সম্ভব হলে ফেরার সময় অন্য রাস্তা দিয়ে ফিরা। (বুখারী হাদিস নং ৯৮৬)
১৩. ঈদুল ফিতরে ঈদগাহে যাবার সময় আস্তে আস্তে এই তাকবির পড়তে থাকা।
الله اكبر الله اكبر لا اله الا الله والله اكبر الله اكبر ولله الحمد
তবে ঈদুল আযহায় সময় যাবার পথে এ তাকবীর আওয়াজ করে পড়তে থাকবে। (মুস্তাদরাকে হাকেম, হাদিস নং- ১১০৫)
১৪. ঈদের দিন পরস্পর শুভেচ্ছা বার্তা জানাবো ।
تَقَبَّلَ اللَّهُ مِنَّا وَمِنْكَ
অনুবাদ: আমার এবং তোমার আমল গুলো আল্লাহ কবুল করে নেক। (বায়হাকী, হাদিস নং ৩/৩১৯)

আমাদের সমাজের প্রথাগত ব্যান্ডপার্টি, ডিজেপার্টি এসমস্ত কুসংস্কার দ্বারা ঈদ উদযাপন করা যাবে না। কুরআন – সুন্নাহর নিয়ম-কানূন মেনে ঈদ উদযাপন করাতে হবে। আল্লাহ তাআলা শরীয়ত সম্মতভাবে ঈদ পালন করার তৌফিক দান করুক। আমিন! (লেখক: মাওলানা মুহাম্মদ আতাউল্লাহ্)

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে