ক্যারিবিয়ানদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা জোরদার করবে বিসিবি!

0

আওয়ার টাইমস নিউজ।

নিজস্ব ক্রীড়া প্রতিবেদক।
বিশ্বব্যাপী চলমান করোনার ফলে দীর্ঘ ১০ মাস আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে ছিটকে আছে বাংলার টাইগাররা। ১০ মাস পর বাংলাদেশের আমন্ত্রণে বাঘের ডেরায় আসছে ক্যারিবিয়ানরা। সবকিছু ঠিক থাকলে চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে ক্যারিবিয়ানদের সাথে মাঠের লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে সাকিবরা।

করোনাকালীন এই সময়ে সব নিয়ম মেনে মাঠে কিংবা ড্রেসিং রুমে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আশ্বাস দিয়েছে বিসিবি।আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তিন স্থরের নিরাপত্তা দেওয়া হবে গোটা উইন্ডিজ দলকে। ঢাকায় নামার পর পাঁচ ধাপে করানো হবে কোভিড টেস্ট। হোটেলে অবস্থানরত স্টাফদেরকেও করোনা পরিক্ষা করা হবে।

এই বিষয়ে বিসিবি অপারেশন্স চেয়ারম্যান আকরাম খান বলেনঃ সফল সিরিজ আয়োজনে পুরোপুরি প্রস্তুত ক্রিকেট বোর্ড।
ইতোমধ্যেই করোনার দোহাই দিয়ে বাংলাদেশে আসতে নারাজ হয়েছেন উইন্ডিজ দলের ১০ সিনিয়র সদস্য। তাই এই বিষয়ে পূর্বের নিরাপত্তার চেয়েও আরোও অধিক সচেতন বিসিবি।
বোর্ডের অপারেশন্স চেয়ারম্যান আকরাম খান বলেন কোভিড প্রটোকলের ক্ষেত্রে বিন্দুমাত্র ছার দেওয়া হবে না।

আকরাম খান বলেন, আমরা কোভিড নিয়ে খুবই সতর্ক অবস্থায় আছি৷ এর আগে যে দুইটা টুর্নামেন্টে হয়েছে সেখান থেকেও অনেক কিছু শিখেছি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ এই টুর্নামেন্টের সফলতার ওপর আমাদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা নির্ভর করবে।

তবে প্রশ্নটা থেকেই যাচ্ছে! কিভাবে দেওয়া হবে খেলোয়াড়দের কোভিড নিরাপত্তা?
সে বিষয়ে অবশ্য বিসিবি ইতিপূর্বেই ঘোষনা দিয়েছে। পাঁচ ধাপে করোনা পরিক্ষার পর যারা নেগেটিভ থাকবেন কেবলমাত্র তাদেরকে খেলার সনদ দেবে বোর্ড।

বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী বলেন; আমরা উইন্ডিজ পুরো দলকে পাঁচ ধাপে করোনা টেস্ট করবো। হোটেল স্টাফের ৫০ জনকে করোনা টেস্ট করানো হবে। সেখান থেকে যারা নেগেটিভ সনদ নিয়ে ফিরতে পারবে তাদেরকে বায়োবাবলে রাখা হবে। বাংলাদেশ দলকেও দুই ধাপে করোনা টেস্ট করা হবে।

টিম,হোটেল কিংবা মাঠে নিরাপত্তার ব্যাপারে সজাগ দৃষ্টি রাখবে বিসিবির নিরাপত্তা বাহিনী। সাদা পোষাকেও নিরাপত্তার ব্যাপারে নজর রাখবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

মিরপুর জোনের ডিসি মাহাতাব রিপন বলেন, আমরা তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করবো। সাদা পোষাকেও নিরাপত্তা রক্ষাবাহিনী থাকবে। কোন ধরনের হুমকি নেই আমাদের কাছে। তবুও যেহেতু আমাদের দেশের ভাবমূর্তির বিষয়, সেখানে আমরা কোন ছাড় দেব না।

উল্লেখ্য চলতি মাসের ১০ জানুয়ারি বাংলাদেশ পৌছাবে উইন্ডিজ দল। এবং দীর্ঘ দেড় মাসের সিরিজ শেষ করে ১৬ ফেব্রুয়ারী ঢাকা ছাড়বে উইন্ডিজ দল।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে